kalerkantho

বুধবার । ২৩ অক্টোবর ২০১৯। ৭ কাতির্ক ১৪২৬। ২৩ সফর ১৪৪১                 

তুরস্ক সীমান্তে ব্যাপক সংঘর্ষ-বিস্ফোরণ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ১৩:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তুরস্ক সীমান্তে ব্যাপক সংঘর্ষ-বিস্ফোরণ

সিরিয়ায় কুর্দি মিলিশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে তুরস্ক

তুরস্ক সীমান্তে বড় ধরনের বিস্ফোরণ ঘটেছে। কে বা কারা ওই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে, তা জানা যায়নি। এদিকে, সিরিয়ায় কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে তুরস্ক। সিরিয়ার বিদ্রোহী সেনারাও এই অভিযানে যোগ দিয়েছে বলে জানা গেছে। 

তুরস্কের সেনাবাহিনী মার্কিন মদদপুষ্ট কুর্দিস বাহিনী 'সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস'-এর (এসডিএফ) ওপর হামলা চালাচ্ছে। 
 
সম্প্রতি তুরস্ক সীমান্তের কাছে উত্তরপূর্ব সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তারপর থেকেই বাড়ছিল তুরস্কের হামলার আশঙ্কা। 

উল্লেখ্য, সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে মদদ দিচ্ছে এসডিএফ। রুশ সমর্থিত প্রেসিডেন্ট আসাদের সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে এই মিলিশিয়া। 

তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের অভিযোগ, তুরস্কে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মদদ দিচ্ছে এসডিএফ। 'কুর্দিস্তান' গঠনে কুর্দিদের অস্ত্র দিচ্ছে এসডিএফ। সব মিলিয়ে মার্কিন সেনা পিছু হঠলে এরদোয়ান, আসাদ ও রাশিয়ার সেনার বিপক্ষে একা মাঠে নামতে হবে এসডিএফকে।

এসডিএফ জানিয়েছে, ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াই বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। সমস্ত শক্তি দিয়ে আপাতত তুরস্কের আক্রমণ প্রতিহত করাই এখন তাদের কাছে জরুরি। 

এদিকে, তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলাট কাভুসগলু বলেছেন, সিরিয়ার মাটিতে জঙ্গিদের শেষ না করা পর্যন্ত থামবে না কুর্দিশ বাহিনী। 

প্রসঙ্গত, গত বছরের শেষের দিকে পশ্চিম এশিয়ায় নয়া সমীকরণ তৈরি করে সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেন, সন্ত্রাস জর্জরিত দেশটিতে পরাজয় হয়েছে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের। তাই সে দেশে মোতায়েন মার্কিন সৈন্যদের ফেরত নিয়ে আসা হবে। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক  বিশেষজ্ঞদের মতে যুক্তরাষ্ট্রে র প্রস্থানে সিরিয়ায় আরও প্রভাবশালী হয়ে উঠবে রাশিয়া ও ইরান। আরও প্রভাবশালী হয়ে উঠবেন সিরিয়ান প্রেসিডেন্ট বাশার-আল-আসাদ।

সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান, সংবাদ প্রতিদিন 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা