kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

পানশালায় যৌন হয়রানির লোমহর্ষক বর্ণনা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পানশালায় যৌন হয়রানির লোমহর্ষক বর্ণনা

মোদি সরকারের আমলে ভারতে অপরাধের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলছে। শিশু থেকে বৃদ্ধারও শিকার হচ্ছেন যৌন হয়রানির। আর তার প্রমাণ আবার মিলল। গত শনিবার রাতে দিল্লির অভিজাত এলাকা গ্রেটার কৈলাসের এমব্লক মার্কেটের একটি অভিজাত পানশালায় হয়রানির শিকার হন তিন নারী। 

দিল্লির বাসিন্দা এক নারী তার দুই বান্ধবীর সঙ্গে ওই পানশালায় গিয়েছিলেন। সেখানেই দুই মাতাল যুবক তাদের হয়রানি করেন। ওই নারী ফেসবুকে সেই ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন। তিনি জানান, তাদের টেবিলের পিছনেই অন্য টেবিলে বসেছিল ওই দুই যুবক। একজন তার বান্ধবীর চেয়ারে এমনভাবে হাত রেখেছিল, যে তার বান্ধবীর শরীর তা স্পর্শ করছিল। ওই নারীরর বান্ধবীর চেয়ার কিছুটা সরিয়ে আনলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই যুবক তার চেয়ার জোরে ঠেলে দেন। মহিলা হুমড়ি খেয়ে পড়েন। তারা যুবককে এ ব্যাপারে সতর্ক করতে গেলে চিৎকার করে উঠে খারাপ শরীরিক ভঙ্গিতে চেয়ারে দুই পা ফাঁক করে বসে নিজের পুরুষাঙ্গে ইঙ্গিত করে অশ্লীল মন্তব্য করতে থাকে ওই নারীর উদ্দেশ্যে। 

তিনি আরো জানান, এরপর তার সামনে জুতা তুলে নাচাতে নাচাতে বলে, ‘‌এসে আমার পা চাটো, তোমরা সব দক্ষিণ দিল্লির আন্টি, আমার বাড়ির পরিচারিকার মতো দেখতে।’

ওই নারী জানান, এই ঘটনায় তারা তিন বান্ধবীই রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এবং পানশালার ম্যানেজারকে অভিযোগ জানান। ম্যানেজার তখন দুই যুবককেই শান্ত হতে আবেদন করে তাদের দোতলায় পাঠিয়ে দেন। অথচ দুই যুবকই মিনিট পাঁচেকের মধ্যেই নেমে এসে ফের ওই টেবিলেই বসে টানা ২৫ মিনিট ধরে তিন নারীর উদ্দেশ্যে অশ্লীল কটূক্তি করতে থাকে। আরেক বান্ধবী এরপর পুলিশকে ফোন করতে গেলে তারা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

দক্ষিণ দিল্লি পুলিশের ডিসিপি অতুল ঠাকুর বলেন, ঘটনায় এফআইআর দায়ের হয়েছে। তদন্ত চলছে। পানশালার সিসিটিভি ফুটেজ দেখে যুবকদের খোঁজ শুরু হয়েছে। পানশালা কর্তৃপক্ষও পুলিশকে যাবতীয় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা