kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

নৃশংস! ২০ দিন বয়সী জমজ কন্যাদের পুকুরে ডুবিয়ে হত্যা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২২:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নৃশংস! ২০ দিন বয়সী জমজ কন্যাদের পুকুরে ডুবিয়ে হত্যা!

প্রতীকী ছবি

এই একবিংশ শতকেও কন্যা সন্তানকে মেনে নিতে পারে না অনেক অশিক্ষিত ব্যক্তিরা। যার পরিণতি হয় ভয়াবহ। ভারতের উত্তরপ্রদেশের একটি ঘটনায় কেঁপে উঠেছে মানুষের বিবেক। যমজ মেয়ে হওয়ার পর থেকে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করত স্বামী। এরপর গত শনিবার রাতে শিশু দুটি নিখোঁজ হয়। নাটক সাজাতে থানায় গিয়ে অভিযোগ করে সেই ব্যক্তি। পরে পুলিশ তদন্তে নেমে স্বামী-স্ত্রী দুজনকে জেরা করতেই বেড়িয়ে আসে থলের বেড়াল। পুলিশের দাবি, তারাই দুই শিশুকন্যাকে পুকুরে ছুড়ে মেরে ফেলেছে।

ভারতের গণমাধ্যম জানিয়েছে, মুজফ্‌ফরনগরের ভিক্কী গ্রামের বাসিন্দা ওয়াসিম দিনমজুরি করে সংসার চালায়। ২০ দিন আগে দুই যমজ মেয়ে প্রসব করে তার স্ত্রী নাজমা। মেয়ে সন্তান কেন হলো- এমন বিষয় নিয়ে শনিবার রাতে নাজমা ও ওয়াসিমের মধ্যে প্রবল ঝগড়াঝাঁটি হয়। যদিও সন্তান মেয়ে হবে না ছেলে হবে- এজন্য একমাত্র দায়ী পুরুষ। পরের দিন সকালে থানায় গিয়ে পুলিশকে ওয়াসিম জানায়, সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর থেকে তার মেয়েদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। রীতিমতো অভিযোগ দায়ের করে সে।

স্থানীয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অজয় কুমার জানান, আজ রবিবার সকালে ওয়াসিমের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেন তারা। অজয় কুমারের দাবি, শনিবার রাতে ঝগড়ার পর দুই মেয়েকে বাড়ির কাছেই একটি পুকুরে ছুড়ে ফেলে দেয় ওয়াসিম ও নাজমা।  সেখানে ডুবে মারা যায় সদ্যোজাত আফরিন ও আফরা। ওই পুকুর থেকেই দুই সদ্যোজাত শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাদের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

ওয়াসিমের প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, ওয়াসিমের একটি ৭ বছরের ছেলে রয়েছে। এরপর যমজ মেয়ে হওয়ায় রেগে গিয়েছিল ওয়াসিম। এ নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া করত সে। পুলিশের দাবি, জিজ্ঞাসাবাদে নিজেদের অপরাধের কথা স্বীকার করেছে ওয়াসিম-নাজমা। পুলিশের কাছে ওয়াসিম জানিয়েছে, মেয়েদের খরচ বহন করতে না পেরেই তাদের খুন করেছে। ওই দম্পতিকে খুন, প্রমাণ লোপাট করাসহ পুলিশের কাছে ভুল তথ্য দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা