kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

সৌদি তেলক্ষেত্রে হামলার জের

যুদ্ধের দিকে যাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৩:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুদ্ধের দিকে যাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি?

প্রতীকী ছবি

সম্প্রতি সৌদি আরবের সবচেয়ে বড় তেল শোধনাগারে ড্রোন হামলা চালানো হয়। এই হামলায় যুক্তরাষ্ট্র ও সৌদি জোটের সন্দেহের তীর ইরানের দিকে।

এই প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র-ইরান আলোচনা ভেস্তে যেতে চলেছে। এই পরিস্থিতি মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধের সম্ভাবনা উসকে দিচ্ছে।  ওয়াশিংটন ও তেহরানের মধ্যে উত্তেজনার পারদ ক্রমাগত চড়ছে। ফলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে দুদেশের শীর্ষ নেতৃত্বের আলোচনায় বসার সম্ভাবনা ছিল। তবে ক্রমেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির মধ্যে বৈঠকের সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে আসছে।

সম্প্রতি ট্রাম্প জানিয়েছেন, জাতিসংঘের সাধারণ সভার ফাঁকে ইরানের সঙ্গে বৈঠকের কোনও সম্ভাবনা নেই। 

তিনি বলেন, আমি জানি, ওরা (ইরান) কথা বলতে চাইছে। দেশ হিসেবে ইরান একেবারেই ব্যর্থ। এই মুহূর্তে ইরান অনেক সমস্যায় মধ্যে রয়েছে। কিন্তু, বিগত আড়াই-তিন বছর ধরে তারাও অনেক সমস্যা তৈরি করছে। দেখা যাক কি হয়। 

এদিকে, ওয়াশিংটনের বিরুদ্ধে পালটা সুর চড়িয়েছে ইরানও। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনও রকম আলোচনা বা সমঝোতার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছে  দেশটি। 
ইরানের শীর্ষ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনও স্তরেই আলোচনার কোনও সম্ভাবনা নেই। ট্রাম্পের দেশের বিরুদ্ধে তোপ দেগে তিনি বলেন, ইরানকে দমানোর জন্য সবরকম চেষ্টা চলছে। কিন্তু, তাতে কোনও লাভ হবে না।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের সর্ববৃহৎ তেল উৎপাদন কোম্পানির দুটি কারখানায় ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের হামলার জেরে ক্রমেই বাড়ছে জ্বালানি তেলের দাম। অপরিশোধিত তেলের দাম গত চার মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ব্যারেলপিছু ৭২ মার্কিন ডলার হয়েছে। 

তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের কাছে থাকা তেল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ দেন। এর ফলে বদলে যায় পরিস্থিতি। ১৯ শতাংশের জায়গায় তেলের দামবৃদ্ধির পরিমাণ দাঁড়ায় ১০.৬৮ শতাংশে। তবে সৌদির সরকারি কোম্পানি আরামকোর কারখানায় বিস্ফোরণের পরে গোটাবিশ্বে জ্বালানি তেলের সরবরাহ ৫ শতাংশেরও বেশি কমে গেছে।
  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা