kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

'যুদ্ধ চাই না, তবে আমরা প্রস্তুত' সৌদি তেলক্ষেত্রে হামলা ইস্যুতে ট্রাম্প

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৬:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'যুদ্ধ চাই না, তবে আমরা প্রস্তুত' সৌদি তেলক্ষেত্রে হামলা ইস্যুতে ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প; ডানে-হামলার পর সৌদি তেলক্ষেত্রে আগুন জ্বলছে

শনিবার সৌদি আরব তথা বিশ্বের সবচেয়ে বড় তেলক্ষেত্র আবকাইক এবং খুরাইসে ড্রোন হামলা চালানো হয়। এতে সৌদি আরবের তেল উত্তোলন কমে যায় অর্ধেক। ইয়েমেনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুতি এ হামলার দায় স্বীকার করলেও সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি, ইরানই এ হামলা চালিয়েছে। এই প্রেক্ষিতে মধ্যপ্রাচ্যে নতুন করে যুদ্ধের আশঙ্কা বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যুদ্ধ চাই না, তবে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত আছি। 

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে আমরা যুদ্ধের জন্য অধিক প্রস্তুত রয়েছি। 

তিনি জানান, সৌদি আরবের ওই হামলার নেপথ্যে তেহরান জড়িত রয়েছে এ বিষয়ে যতক্ষণ পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পাওয়া না যাবে, ততক্ষণ পর্যন্ত প্রতিশোধ নেয়ার কোনো পথ বেছে নেবেন না তিনি। 

ট্রাম্প বলেছেন, সৌদি  তেলক্ষেত্রে ওই হামলা জন্য মনে হচ্ছে ইরান দায়ী। তাই তিনি সুনির্দিষ্ট প্রমাণ চাইছেন। 

ইয়েমেনের বিদ্রোহী হুতিদের সমর্থন দেয় ইরান। তারা বলছে, এই হামলার জন্য দায়ী তারা। এমনও সতর্কতা দিয়েছে যে, তারা আরো হামলা চালাবে। 

এদিকে, আবকাইক ও খুরাইসে তেলক্ষেত্রে হামলার জন্য ইরানকেই দায়ী করছে সৌদি আরব ও যুক্তরাষ্ট্র। হামলায় ইরানে তৈরি অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে এবং তা ইয়েমেন থেকে ছোড়া হয়নি বলে প্রাথমিক তদন্তে তথ্য মিলেছে বলে দাবি করেছেন সৌদি আরবের সামরিক মুখপাত্র কর্নেল তুর্কি আল মালকি। 

সৌদি আরবে তেলক্ষেত্রে হামলার কারণে কয়েক দশকের মধ্যে বিশ্ববাজারে অশোধিত তেলের দাম সবচেয়ে বেশি বেড়ে যায়। ওই দুটি তেলক্ষেত্রে ড্রোন হামলার পর বিশ্ববাজারে তেলের দাম শতকরা প্রায় ২০ ভাগ বেড়ে গেছে। 

সূত্র : স্কাই নিউজ 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা