kalerkantho

সাংবাদিক খাশোগি হত্যার আগমুহূর্তের অডিও প্রকাশ করল তুর্কি মিডিয়া

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:২২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সাংবাদিক খাশোগি হত্যার আগমুহূর্তের অডিও প্রকাশ করল তুর্কি মিডিয়া

জামাল খাশোগি

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সমালোচক হিসেবে পরিচিত জামাল খাশোগি গত বছরের ২ অক্টোবর তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে খুন হন। সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ঠিক আগের মুহূর্তে ধারণ করা একটি অডিও রেকর্ডিং প্রকাশ করেছে তুরস্কের দৈনিক 'দ্য ডেইলি সাবাহ। তুরস্কের সরকারপন্থি পত্রিকাটি জানিয়েছে, সৌদি দূতাবাসের ভেতরের একটি রেকর্ডিং তুর্কি গোয়েন্দাদের হাতে আসে। ওই রেকর্ডিংয়ে মৃত্যুর আগে জামাল খাশোগির শেষ কথাসহ হত্যাকাণ্ডের ঘটনার বিভিন্ন তথ্য রয়েছে।

চলতি সপ্তাহে খাশোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে নতুন দুটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে সাবাহ। এসব প্রতিবেদনে বলা হয়, একটি 'হিট স্কোয়াড' খাশোগিকে হত্যা করেছে। আর পত্রিকাটির নতুন প্রতিবেদনে হত্যাকাণ্ডের ঠিক আগমুহূর্তের একটি রেকর্ডিংয়ের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

পত্রিকাটি জানিয়েছে, হত্যার ঘটনাস্থলে একজন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ উপস্থিত ছিলেন। তিনি ছিলেন সৌদি আরব থেকে আসা 'হিট স্কোয়াড'-এর একজন সদস্য। খাশোগি সৌদি দূতাবাসে পৌঁছার আগে তাঁকে 'উৎসর্গ করা পশু' হিসেবে উল্লেখ করেন ওই ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ।


সাবাহর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি দূতাবাসে ঢোকার পর একটা সময় সন্দেহজনক কিছুর আভাস পান খাশোগি। ওই সময় ‘হিট স্কোয়াড’ এর পক্ষ থেকে খাশোগিকে বলা হয়, ইন্টারপোলের আদেশে তাঁকে রিয়াদে ফিরে যেতে হবে। কিন্তু 'হিট স্কোয়াড' এর অনুরোধ মানতে রাজি হননি খাশোগি। সন্দেহজনক কিছু ঘটার আঁচ পেয়ে নিজের ছেলেকে ম্যাসেজ পাঠান তিনি। এরপরই খাশোগিকে চেতনানাশক ওষুধ দেয় 'হিট স্কোয়াড'।

দৈনিক সাবাহ'র প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, অচেতন হওয়ার ঠিক আগমুহূর্তে খাশোগি তাঁর হত্যাকারীদের অনুরোধ করে বলেছিলেন, তাঁর অ্যাজমা আছে, তাই তাঁর মুখ যেন না বাঁধা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রেকর্ডিংয়ে ধস্তাধস্তির শব্দ থেকে অনুমান করা হচ্ছে, মুখে বায়ুনিরোধক ব্যাগ বেঁধে শ্বাসরোধ করে খাশোগিকে হত্যা করে দুস্কৃতিকারীরা।  এছাড়া, ঘটনাস্থলে উপস্থিত ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ খাশোগির হাত-পা কাটেন বলে রেকর্ডিং থেকে বোঝা যাচ্ছে।

খাশোগি হত্যাকাণ্ডের অডিও রেকর্ডিংয়ের অস্তিত্ব নিয়ে এক বছর ধরেই গুঞ্জন চলছে। তুর্কি কর্মকর্তারাও আনুষ্ঠানিকভাবে এসব অডিওর অস্তিত্বের কথা আগেই জানিয়েছিলেন। এমনকি এসব অডিও বিভিন্ন দেশের কাছে পাঠানো হয়েছে বলেও তুরস্কের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের সমালোচক হিসেবে পরিচিত জামাল খাশোগি গত বছরের ২ অক্টোবর নিজের তুর্কি বাগদত্তাকে বিয়ের জন্য প্রয়োজনীয় নথিপত্র সংগ্রহ করতে ইস্তাম্বুলে সৌদি দূতাবাসে গিয়ে পাশবিক হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। বিন সালমানের ঘনিষ্ঠ একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তার নেতৃত্বে একদল ঘাতক ইস্তাম্বুলে গিয়ে ওই হত্যাকাণ্ড সম্পন্ন করে আবার রিয়াদে ফিরে যায়। খুন হওয়ার আগে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টে একটি কলাম লিখেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত সাংবাদিক খাশোগি।

সূত্র : পার্সটুডে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা