kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মহাকাশে নভোচারী পাঠাচ্ছে ভারত, প্রাথমিকভাবে বাছাই করা হলো ১২ জনকে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মহাকাশে নভোচারী পাঠাচ্ছে ভারত, প্রাথমিকভাবে বাছাই করা হলো ১২ জনকে

ভারতের বিমান বাহিনীর কর্মকর্তা রাকেশ শর্মা মহাকাশে গিয়েছিলেন ১৯৮৪ সালে। তিনিই প্রথম ও একমাত্র ভারতীয়, যিনি মহাকাশে ঘুরে এসেছেন। রাশিয়ার মহাকাশয়ান ‘সয়ুজ টি-১১’-তে চেপে মহাকাশে পাড়ি দিয়েছিলেন তিনি। 

ভারত এবার নিজেদের বানানো মহাকাশযান ‘গগনযান’-এ চাপিয়ে মানুষ পাঠাতে যাচ্ছে মহাকাশে। তিনজন নভোচারী বেছে নেওয়া হবে ভারতীয় বিমান বাহিনীর বিভিন্ন বিভাগ থেকে। 

বাছাই পর্বে প্রথম ১২ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। গত শুক্রবারই সে কথা জানিয়েছে ভারতের বিমান বাহিনী। তবে এখনো সেই তালিকা প্রকাশ করা হয়নি। সেটা গোপন রাখাই অবশ্য নিয়ম। ২৫ জনের মধ্য থেকে ১২ জন বাছাই হয়েছে। এর পর ধাপে ধাপে বাছাই করে শেষে চূড়ান্ত তিন জনকে নির্বাচন করা হবে।

ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো জানিয়েছিল, গগনযানের জন্য মহাকাশচারীদের বেছে নেওয়া হবে ভারতের বিমান বাহিনীর তিনটি বিভাগ থেকে। চূড়ান্ত তালিকায় থাকবেন ছয়জন। যাদের মধ্য থেকে বেছে নেওয়া হবে তিনজনকে। 

এই বিশেষ বাহিনীর মধ্যে থাকবেন দুইজন পুরুষ ও একজন নারী। সুতরাং কোন তিন বিভাগের পাইলটদের শিকে ছিঁড়ছে তা নিয়ে জল্পনা ছিলই। গত বুধবার ইসরোর এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এই তিনজন নভোচারীর বাছাই পর্ব চলছে। তবে তাদের মধ্যে নারী থাকবেন কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। কারণ, যে সশস্ত্র বিভাগ থেকে মহাকাশচারীদের বেছে নেওয়া হচ্ছে, সেখানে কোনো নারী কর্মকর্তা নেই।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এর আগে ঘোষণা করেছিলেন, ২০২২ সালের মধ্যেই মহাকাশে মানুষ পাঠাবে ভারত। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরে গগনযানে মানুষ পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করে দেয় ইসরো। ভারতীয় মহাকাশচারীদের বেছে নেওয়ার জন্য তৈরি হয় কমিটি। যে তিনজনকে বেছে নেওয়া হবে, তাদের কস্টিউমের মডেলও ইসরোর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

তখনই জানানো হয়েছে, তিনজনের মধ্যে নারী-পুরুষ উভয়েই থাকবেন। ইসরো জানিয়েছে, প্রায় দেড় বছর প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে নভোচারীদের। যার অধিকাংশ হবে ভারতে। চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রস্তুতির জন্য এরই মধ্যে নাসা, রাশিয়া এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছে ইসরো। গগনযানে ৩ থেকে ৭ দিন পর্যন্ত নভোচারীরা মহাকাশে থাকবেন। তার পর তাদের পৃথিবীতে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা