kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

দেখুন,দানবীয় ঘূর্ণিঝড় ডোরিয়ানের চোখের চমকপ্রদ দৃশ্য

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৬:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেখুন,দানবীয় ঘূর্ণিঝড় ডোরিয়ানের চোখের চমকপ্রদ দৃশ্য

ডোরিয়ানের চোখের চমকপ্রদ দৃশ্য

আজ যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হেনেছে দানবীয় ঘূর্ণিঝড় ডোরিয়ান। এদিকে, রবিবার ঘূর্ণিঝড় ডোরিয়ানের একটি অত্যাশ্চর্য ছবি প্রকাশিত হয়েছে। 

এই ঘূর্ণিঝড়ের চোখ দেখতে আসলে কী রকম লাগে, তা এই ছবিতে ফুটে উঠেছে। 

রবিবার বিকেলে একটি টুইটার ওই চমকপ্রদ ছবিটি পোস্ট করা হয়েছে। 

ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে, শক্তিশালী হারিকেন ডরিয়ানের ওপরে পরিষ্কার নীল আকাশে জ্বলজ্বল করছে। আর এর মধ্যে মার্কিন বিমানবাহিনীর একটি প্লেন শান্ত পরিবেশের মধ্য দিয়ে উড়ে যাচ্ছে। 

দর্শনীয় ওই দৃশ্যে দেখা গেছে, উজ্জ্বল সাদা মেঘ অর্ধবৃত্তকারে প্রসারিত হয়ে রয়েছে। ছবিটির নীচে বাম পাশের কোণার কাছে একটি ৬ ব্লেডযুক্ত প্রপেলার ইঞ্জিনও দেখা যাচ্ছে। 

গ্যারেট ব্ল্যাক নামের এক ব্যক্তি 'দ্য আই অব 'হ্যাশট্যাগ ডরিয়ান' নামে ছবিটি টুইট করেছেন। তার প্রোফাইলে তাকে 'আবহাওয়াবিদ' এবং 'এয়ার ফোর্স হ্যারিকেন হান্টার' হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। 

তাপমাত্রা, বাতাসের গতি, দিকনির্দেশ, আর্দ্রতা এবং উপরিভাগের চাপসহ ডেটা সংগ্রহের জন্য প্রচুর সুপার হারকিউলিস বিমান ঝড়ের পথ ধরে উড়ে বেড়ায়। এই বিমানবহরকে 'হ্যারিকেন হান্টারস' বলা হয়ে থাকে। এটা যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় হ্যারিকেন কেন্দ্র দ্বারা আবহাওয়ার পূর্বাভাস প্রস্তুত করতে ব্যবহৃত হয়।

এদিকে, এর আগে রবিবার, কয়েকটি ভিডিওতে দেখা গেছে যে, ডোরিয়ানের অবস্থান বাহামার অ্যাবাকো দ্বীপপুঞ্জের সন্নিকটে রয়েছে। সে সময় ঘূর্ণিঝড়টির গতিবেগ ছিল প্রতি ঘণ্টায় ২২০ মাইল। এই ঝড় ২৩ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস সৃষ্টি করতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। 

সূত্র : নিউ ইয়র্ক পোষ্ট 

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা