kalerkantho

তিন বাংলাদেশী, সঙ্গে প্রেমিক, পুলিশের পোশাক পরে তরুণীর দুর্ধর্ষ ডাকাতি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ আগস্ট, ২০১৯ ১৩:১০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তিন বাংলাদেশী, সঙ্গে প্রেমিক, পুলিশের পোশাক পরে তরুণীর দুর্ধর্ষ ডাকাতি

দীপা মজুমদার

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নরেন্দ্রপুরে পুলিশ সেজে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উঠে এসেছে আরও চাঞ্ল্যকর তথ্য। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪ জনকে  গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে তিনজন বাংলাদেশি। এবার এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দীপা মজুমদার নামে ২২ বছর বয়সী এক তরুণীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

জানা গেছে, গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিদের জেরা করেই জানা যায় দীপার নাম। এই ঘটনার মূলচক্রী সে-ই। দীপার ছকেই সেদিন রাতে ডাকাতি হয়েছিল ব্যবসায়ীর বাড়িতে। ঘটনায় জড়িত দীপার প্রেমিকও। ঘটনার পর থেকেই পালিয়েছে ওই যুবক।

 
গত ১৮ অগাস্ট নরেন্দ্রপুরের নেতাজিনগরের ব্যবসায়ী অরূপ দত্তের বাড়িতে পুলিশ সেজে ডাকাতি করে কয়েকজন দুষ্কৃতিকারী। মাঝরাতে ডাকাতি হয়। সে সময় বাড়িতে ছিলেন তিনি ও তাঁর বৃদ্ধা মা। অভিযোগ, রাত ২টা নাগাদ দরজায় এসে কয়েকজন আওয়াজ করে। না পেয়ে জানলায় ধাক্কা মারে তারা। তারা নিজেদের পুলিশকর্মী বলে পরিচয় দেয়। ৬ জনের দলে ৩ জন ছিল সাধারণ পোশাকে আর বাকি তিনজন পুলিশের উর্দি পরে ছিল। তাদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্রও ছিল। আলমারি ভেঙে ৭০ হাজার টাকা ও ১৩ ভরি সোনার গয়না লুট করে পালায় তারা। যাওয়ার সময়ে বাড়ির সামনে কয়েক রাউন্ড গুলি চালায় বলেও অভিযোগ। 

এই ঘটনায় সেদিনই স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে ধরা পড়ে যায় একজন। বেধড়ক মারধরের পর তাকে তুলে দেওয়া হয় পুলিশের হাতে। পরে গ্রেপ্তার করা হয় আরও চারজনকে। 

গ্রেপ্তারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশের হাতে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গেছে, অরূপের বাড়িতে অবাধ যাতায়াত ছিল দীপার। অরূপের মা মায়া দত্তকে সে কাকি বলে ডাকত। কাকিও দীপাকে খুব স্নেহ করতেন। 

পুলিশ জানিয়েছে, অরূপের বাড়ির প্রত্যেকটি বিষয় খুব ভালোভাবে জানত দীপা। মায়াদেবীর যে প্রচুর গয়না আছে, তাও সে জানত। মাস কয়েক আগে বিয়েবাড়ি যাবে বলে মায়াদেবীর কাছে গয়না চায় সে। সরল মনে সেই গয়না দেন মায়াদেবী।

বিয়ে বাড়িতেই দীপার বর্তমান প্রেমিকের সঙ্গে সেই গয়না নিয়ে কথাবার্তা হয়। তখনই তারা ডাকাতির ছক করে। দীপার প্রেমিকই বাংলাদেশের কুখ্যাত ডাকাত রেজাউলের সঙ্গে যোগাযোগ করে।

এরপর রেজাউল, দীপা ও প্রেমিক মিলে ডাকাতির ছক করে। 'অপারেশন' এর আগে অরূপ দত্তের বাড়িতে একটি পুজার অনুষ্ঠানে যোগ দেয় তারা। সেখানে আরও ভালোভাবে সব লক্ষ্য করে নেয় তারা। ঘরের জিনিসপত্র, ঠাকুরের গায়ে বিপুল গয়না দেখে আসে তারা। এরপর ছক মারফত নির্দিষ্ট দিনে ডাকাতি হয় নেতাজিপল্লীতে।  

জানা গেছে, দীপাকে জেরা করে এবার তার প্রেমিকের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

সূত্র : জি-নিউজ 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা