kalerkantho

জ্বলছে পৃথিবীর ফুসফুস

মিনিটে সাফ হচ্ছে ফুটবল মাঠের সমান জঙ্গল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:৩৭ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মিনিটে সাফ হচ্ছে ফুটবল মাঠের সমান জঙ্গল

ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ‘ইনপে’র সমীক্ষা মতে, চলতি বছরের প্রথম আট মাসে আমাজন রেইন ফরেস্টে ৭২ হাজার ৮৪৩টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা নথিভুক্ত হয়েছে। গত বছরের এই সময়ের তুলনায় যা ৮৩ শতাংশ বেশি এবং ২০১৩ সালের তুলনায় দ্বিগুণ। আমাজনে লাগা আগুনের ধোঁয়ার বলি হচ্ছে আশপাশের শহরগুলো। আড়াই হাজার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ব্রাজিলের সাও পাওলোসহ বেশ কয়েকটি শহর দিনের বেলায় অন্ধকারে ঢেকে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

এ পরিস্থিতিতে ব্রাজিলের বিভিন্ন শহরে আমাজনের অগ্নিকাণ্ড বন্ধ ও আমাজন রক্ষায় বিক্ষোভ করেছে হাজার হাজার মানুষ। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে বিশ্বজুড়েই। চলতি বছরের রেকর্ড অগ্নিকাণ্ডকে আন্তর্জাতিক সংকট হিসেবে বিবেচনা করছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ। তিনি বলেন, এ বিষয়টি জি-৭ সম্মেলনের আলোচ্যসূচির শীর্ষে থাকা উচিত। এদিকে জাতিসংঘের মহাসচিব আমাজন পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ‘বৈশ্বিক জলবায়ু সংকটের মধ্যে অক্সিজেন ও জীববৈচিত্র্যের অন্যতম প্রধান উেসর এমন ক্ষতি আমরা মেনে নিতে পারি না।’

টুইটারে ফরাসি প্রেসিডেন্ট লিখেছেন, ‘আমাদের ঘর জ্বলছে।’ ম্যাখোঁর মন্তব্য নিয়ে সরব হয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনেরো। তাঁর ভাষ্য, রাজনৈতিক সুবিধা নিতে ম্যাখোঁ আমাজনের অগ্নিকাণ্ডকে ব্যবহার করছেন। জি-৭ সম্মেলনে ব্রাজিল অংশ নিচ্ছে না। সেখানে এ অগ্নিকাণ্ড নিয়ে আলোচনা হলে ‘উপনিবেশবাদী মানসিকতাই’ উন্মোচিত হবে।

আমাজনে রেকর্ড অগ্নিকাণ্ডের জন্য বোলসোনেরো সরকারের নীতিকে দায়ী করছেন পরিবেশবাদীরা। তাঁদের অভিযোগ, বন উজাড়ে কাঠুরে ও কৃষকদের উৎসাহিত করছেন ব্রাজিলের কট্টর ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট।

তবে বোলসোনেরো দাবি করেছেন, এ অগ্নিকাণ্ডের জন্য মূলত কিছু বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) দায়ী। তবে তিনি এই দাবির সমর্থনে কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি। অবশ্য বৃহস্পতিবার তিনি তাঁর অবস্থান থেকে সরে এসে বলেছেন, এই অঞ্চলে আগুন লাগানোর পেছনে কৃষকরাও জড়িত থাকতে পারে।

এদিকে গতকাল শুক্রবার ব্রাজিলের বিভিন্ন শহরে আমাজনের অগ্নিকাণ্ড বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে হাজার হাজার মানুষ। ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে বিশ্বজুড়েই।

আজ শনিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া জি-৭ সম্মেলনের আয়োজক দেশ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁ বলেছেন, ‘আমাজন নিয়ে বিশ্বের উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত। আমাজন আমাদের গ্রহের ২০ শতাংশ অক্সিজেন উৎপাদন করে, তা পুড়ছে। জি-৭ সম্মেলনের সদস্য রাষ্ট্রদের উচিত হবে এই জরুরি বিষয় নিয়ে আলোচনা করা।’

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার উপগ্রহ চিত্রেও ধরা পড়েছে আমাজনে ঘটতে থাকা ৯ হাজার ৫০৭টি নতুন অগ্নিকাণ্ডের চিত্র। আগুনের তীব্রতার ছবি পাঠাচ্ছে নাসার একাধিক স্যাটেলাইট। তবে আগুনের চেয়েও বিজ্ঞানীদের বেশি ভাবাচ্ছে আগুন থেকে উৎপন্ন ধোঁয়া। প্রায় এক হাজার ৭০০ কিলোমিটার দূরত্ব পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ছে কালো ধোঁয়া।

বছরের জুলাই-আগস্ট মাসে আমাজনের আবহাওয়া কিছুটা শুষ্ক হয়ে ওঠে। তবে স্থানীয় পরিবেশবিদদের ধারণা, প্রাকৃতিকভাবে এই আগুন লাগেনি। ব্রাজিলের ফেডেরাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের একাংশ বলছে, শুকনা বাতাসে দাবানল জ্বলে ওঠা অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে এ ক্ষেত্রে দাবানলের প্রকোপে আগুন লাগেনি বলেই মনে হচ্ছে। অনেক সময় চাষের জন্য জমি বা খামার তৈরি করতে ইচ্ছাকৃতভাবে জঙ্গলে আগুন ধরিয়ে দেয় স্থানীয় গ্রামবাসী। সেখানেও এমনটাই হচ্ছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

জলবায়ু বিজ্ঞানী কার্লোস নোব্রে বলেছেন, গবাদি পশুর চারণভূমি হিসেবে জমি ব্যবহার করতে চাওয়া কৃষকরা জায়গা পরিষ্কার করতে শুকনা আবহাওয়ার জন্য অপেক্ষা করে। এ সময় বন দাহ্য হয়ে থাকে এবং খুব সহজেই তাতে আগুন লাগে। সাও পাওলো বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট ফর অ্যাডভান্সড স্টাডিজের এ গবেষক বলেন, আমাজনে কর্মরত এনজিওগুলো কৃষিকাজে আগুন ব্যবহার করে না। তারা বরং লোকজনকে আগুন ব্যবহার না করতে উৎসাহিত করে।

স্বল্প বৃষ্টিপাতও আমাজনে আগুন লাগার অন্য একটি কারণ হতে পারে বলে ধারণা করছে বিজ্ঞানীদের একটি অংশ। তাদের ভাষ্য, খনিজ পদার্থ অন্বেষণের জন্য আমাজন অরণ্যে লাগাতার জঙ্গল সাফ করে খননকাজ চালানো হয়। সেখানে প্রতি মিনিটে একটি ফুটবল মাঠের মাপের জঙ্গল কাটা হয়। এর ফলে কার্বন ছাকনি হিসেবে পরিচিত চিরসবুজের ওই জায়গা কার্যক্ষমতা হারাচ্ছে। সূত্র : বিবিসি, এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা