kalerkantho

স্বাধীনতা চায় হংকং? সোভিয়েতবিরোধী বিক্ষোভের অনুপ্রেরণায় মানববন্ধন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ আগস্ট, ২০১৯ ১৫:০৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্বাধীনতা চায় হংকং? সোভিয়েতবিরোধী বিক্ষোভের অনুপ্রেরণায় মানববন্ধন

হাতে হাত রেখে মানববন্ধন করেছেন হংকংবাসীরা

হংকংয়ের বাসিন্দারা শুক্রবার রাতে মানববন্ধন করেছে। হংকংয়ে বন্দরের উভয় দিকের কয়েক কিলোমিটার জুড়ে এই মানববন্ধন করা হয়েছে। তিন দশক আগে অনুষ্ঠিত সোভিয়েতবিরোধী বিক্ষোভকারীদের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে এই শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে হংকংবাসীরা। 

প্রায় ৩০ মাইল ব্যাপী বিস্তৃত পথে এই মানববন্ধন করেছেন হংকংবাসীরা। 

কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী হাতে হাত মিলিয়ে এবং গান গেয়ে,  হংকংয়ের ফুটপাত, ওভারপাস, ওয়াটারফ্রন্ট এবং পার্কগুলিতে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে মানবন্ধন করেছে।  এ সময় তারা   মোবাইল ফোনের আলো জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। 

প্রায় ২০ লাখ বিক্ষোভকারী ১৯৮৯ সালের ২৩ শে আগস্ট এস্তোনিয়া, লাটভিয়া এবং লিথুয়ানিয়া জুড়ে ৩৭০ মাইল বিস্তৃত একটি মানববন্ধন তৈরী করেছিলেন। মস্কোর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ প্রদর্শন করেছিলেন ওই বিক্ষোভকারীরা যা 'বাল্টিক ওয়ে' হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। এক বছরের মধ্যেই তিনটি দেশেই স্বাধীনতা লাভ করে। 

শুক্রবার রাতে বেইজিংয়ের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এমনই প্রতিকী বিক্ষোভ করেছে হংকংয়ের বাসিন্দারা। 

হংকংয়ে গত এগারো সপ্তাহব্যাপী বিক্ষোভ আন্দোলন চলছে। ১৯৯৭ সালে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন থেকে মুক্ত হয়ে চীনের কাছে হস্তান্তর হওয়ার পর হংকংয়ে এ ধরনের দীর্ঘ আন্দোলন এটাই প্রথম। 

এদিকে, চীন ইতিমধ্যে ওই বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে বিদেশী শক্তির সাথে যোগসাজসে চীনা শাসনের বিরুদ্ধে 'রঙিন বিপ্লব'-এ প্ররোচিত করার অভিযোগ এনেছে।

জানা গেছে, হংকংয়ের শুক্রবার রাতের প্রতিবাদ ছিল অননুমোদিত তবে শান্তিপূর্ণ। কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ছিল না এমন কয়েকটি ছোট বিক্ষোভ অনুষ্ঠানে সহিংসতা ও পুলিশী বর্বরতা ঘটেছে। তবে বড় সমাবেশগুলিতে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। বড় সমাবেশগুলোতে লাখো মানুষের উপস্থিতি ছিল।

শুক্রবারের হংকংয়ের বিক্ষোভের আয়োজকরা হংকং দ্বীপ, কাউলুন এবং নিউ টেরিটরিগুলিতে প্রায় ৩০ মাইল দূরে পাতাল রেললাইন ও পথগুলোর সাথে একক সারিতে জড়ো হওয়ার আহ্বান জানান। 

রাত ৮ টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ওই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু  ওই সময়ের অনেক আগে থেকেই কালো পোশাক এবং মুখোশ পরিধান করে অনানুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানানো শুরু করে তরুণরা। তাদের সঙ্গে ইউনিফর্ম পরার শিক্ষার্থীরা স্যুট পরা অফিসের কর্মীরা দাঁড়াতে শুরু করে।

ওই মানববন্ধনে অংশ নেওয়া বিক্ষোভকারীরা একে বাল্টিক মানববন্ধনকে অনুপ্রেরণা হিসেবে উদ্ধৃত করেছেন।  

তারা জানিয়েছেন, বাল্টিক মানববন্ধনে লোকেরা সোভিয়েত রাষ্ট্রের কাছ থেকে স্বাধীনতার জন্য তাদের আকাঙ্ক্ষা কথা প্রকাশ করেছিল। 

একজন বিক্ষোভকারী জানান, হংকংয়ের জনগণ তাদের মত প্রকাশ করতে এবং স্বাধীনতা ও মৌলিক মানবাধিকারের জন্য তাদের আকুলতা প্রকাশ করতে এই মানবন্ধনে অংশ নিয়েছে। 

সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা