kalerkantho

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কাশ্মীর যাচ্ছেন রাহুল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ আগস্ট, ২০১৯ ১৩:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কাশ্মীর যাচ্ছেন রাহুল

রাহুল গান্ধি

ভারতে জম্মু এ কাশ্মীর নিয়ে উত্তেজনা চলছে। এদিকে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কাশ্মীর যাচ্ছেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি। একই সঙ্গে সেখানে যাচ্ছে ৯টি বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা। রাহুল গান্ধির আজ দুপুরেই শ্রীনগর যাওয়ার কথা। 

কংগ্রেস সূত্রের খবর, আজ দুপুর বারোটা নাগাদ কাশ্মীরের উদ্দেশে রওনা হবেন রাহুল গান্ধি। তাঁর সঙ্গে যাচ্ছেন সিপিআইএম-এর সীতারাম ইয়েচুরি, সিপিআইয়ের ডি রাজা, ডিএমকের ত্রিরুচি শিবা, আরজেডির মনোজ ঝাঁ, তৃণমূলের দীনেশ ত্রিবেদী। প্রতিনিধিদলে থাকবেন এনসিপির এক প্রতিনিধিও। কংগ্রেস নেতাদের মধ্যে গুলাম নবি আজাদ এবং আনন্দ শর্মাও থাকবেন রাহুল গান্ধির সঙ্গে। এদের মধ্যে গুলাম নবি আজাদ, সীতারাম ইয়েচুরি এবং ডি রাজা আগেও শ্রীনগর গিয়েছেন। কিন্তু তাদের বিমানবন্দরে আটকে দেওয়া হয়। গুলাম নবি আজাদকে এখনও পর্যন্ত দু'বার আটক করা হয়েছে শ্রীনগর বিমানবন্দরে। রাহুল গান্ধি এবং বিরোধী দলের প্রতিনিধিদের আজও আটক করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এর আগে জম্মু ও কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে রাহুল জানিয়েছিলেন তিনি কাশ্মীরে যাবেন। কিন্তু পরে সত্যপাল মালিক দাবি করেন, রাহুল গান্ধি আসলে কাশ্মীরে এসে শান্তি বিঘ্নিত করতে চাইছেন। তবে, রাজ্যপালের সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে শনিবারই কাশ্মীরে যাচ্ছেন রাহুল-সহ বিরোধীদলের প্রতিনিধিরা। তাৎপর্যপূর্ণভাবে বিরোধীদের এই প্রতিনিধিদলে থাকছেন তৃণমূলের প্রতিনিধিও।

শ্রীনগরে গিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি, কাশ্মীরের বিভিন্ন প্রান্ত ঘুরে দেখা কথা আছে বিরোধী নেতাদের। উল্লেখ্য, কাশ্মীরে শান্তি বজার রাখার স্বার্থে ইতিমধ্যেই অন্তত শ' চারেক রাজনৈতিক নেতাকর্মী এবং গ্রেপ্তার বা আটক রয়েছেন। এদিকে, রাহুল গান্ধির এই কাশ্মীর যাত্রাকে ভালো চোখে নেয়নি কাশ্মীর প্রশাসন। কাশ্মীর সরকারের পক্ষে  এলাকার শান্তি রক্ষার স্বার্থে রাহুল এবং অন্যান্য বিরোধীদের কাশ্মীরে না যাওয়ার আহবান জানানো হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা