kalerkantho

পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধের প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে ভারত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ আগস্ট, ২০১৯ ১৭:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধের প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে ভারত

চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় ভারতের বিশেষায়িত নিরাপত্তা বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় ৫০ জন সেনা নিহতের জবাবে পাকিস্তানের ভেতরে ঢুকে বিমান হামলার সময়ই ভারতীয় সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তাদের স্পষ্ট জানিয়ে দেন, তার বাহিনী পাকিস্তানের যেকোনো ধরনের কর্মকাণ্ড প্রতিহত করতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত। এর জন্য অস্ত্র-গোলাবারুদসহ যত ধরনের সামরিক সরঞ্জাম প্রয়োজন, তার সব তৈরি রয়েছে। প্রয়োজনে পাকিস্তানের ভেতর ঢুকে যুদ্ধ করবে ভারতীয় সেনারা।

গত সোমবার বার্তাসংস্থা পিটিআইয়ের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের বরাতে পিটিআই জানায়, পুলওয়ামা হামলার প্রতিশোধ নিতে ভারত সরকার যখন পাকিস্তানে বিমান হামলার মতো কঠোর পদক্ষেপের চিন্তা-ভাবনা করছিল, তখন সেনাপ্রধান তার যুদ্ধপ্রস্তুতির নিশ্চয়তা দিয়েছিলেন সরকারকে।

সোমবার অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে একথা জানিয়েছেন জেনারেল রাওয়াত।

সূত্র জানিয়েছে, ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে উরি হামলার পরপরই ১১ হাজার কোটি রুপি মূল্যের গোলাবারুদ মজুদের চুক্তি করে ভারতীয় সেনাবাহিনী। এরই মধ্যে চুক্তির ৯৫ শতাংশ অস্ত্রশস্ত্র পৌঁছে গেছে।

এছাড়া, সাত হাজার কোটি রুপি মূল্যের ভারী যুদ্ধ সরঞ্জাম কিনতে ৩৩টি চুক্তি করেছে সেনাবাহিনী। আরও নয় হাজার কোটি রুপির চুক্তি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় ভারতের বিশেষায়িত নিরাপত্তা বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় ৪৪ জওয়ান নিহত হন।

জঙ্গিদের মদদ দেওয়ায় ইসলামাবাদকে অভিযুক্ত করে এর জবাব দিতে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে জঙ্গি গোষ্ঠি জইশ-ই-মোহাম্মদের আস্তানায় হামলা চালায় ভারতীয় বিমান বাহিনী। হামলায় অন্তত তিনশ জঙ্গি নিহত হয় বলে দাবি করে ভারত। এর একদিন পরই ভারতের দুটি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত ও দুজন পাইলট আটকের দাবি করে পাকিস্তান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা