kalerkantho

কাশ্মীর নিয়ে মোদি-ইমরানকে ফোনের পর ট্রাম্প

'টাফ সিচ্যুয়েশন, বাট গুড কনভারসেশন'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ আগস্ট, ২০১৯ ১৩:১১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



 'টাফ সিচ্যুয়েশন, বাট গুড কনভারসেশন'

ইমরান খান, ট্রাম্প ও মোদি

কাশ্মীর ইস্যুতে  ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে চরম উত্তেজনা চলছে। এই ইস্যুতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ফোন করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপর তিনি তিনি একটি টুইটবার্তা দিয়েছেন।   

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই টুইটে লিখেছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, আমার এই দুই ভালো বন্ধুর উদ্দেশে বলছি-ভারত ও পাকিস্তানের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো বানিজ্য, কৌশলগত অংশীদারিত্ব এবং  কাশ্মীরে উত্তেজনা হ্রাস করার লক্ষ্যে কাজ করা। 

দুই প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে ওই টুইটবার্তায় ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, এটা কঠিন পরিস্থিতি, তবে উত্তম হলো সংলাপ। 

এর আগে, গতকাল সোমবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে ট্রাম্পের ফোনালাপ হয়েছে। ওই ফোনালাপে জম্মু ও কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে 'নমনীয় ভাষা' ব্যবহার করতে ইমরান কে পরামর্শ দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে চলমান উত্তেজনা কমাতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো ইমরান খানকে ফোন করলেন ট্রাম্প। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনালাপের আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ফোনালাপ হয় ট্রাম্পের। প্রায় ৩০ মিনিট স্থায়ী সে কথোপকথনে পাকিস্তানি নেতাদের ‘চরম বাগ্‌বিতণ্ডা এবং ভারতবিরোধী সহিংসতায় উসকানি দেওয়ার’ বিষয়টি উত্থাপন করেছেন মোদি।

হোয়াইট হাউস বলছে, ফোনালাপের সময় ট্রাম্প জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে ভারতের সঙ্গে উত্তেজনা কমাতে ইমরানকে নমনীয় ভাষা ব্যবহার করতে বলেছেন। ট্রাম্প উভয় পক্ষকেই সংযত হতে আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পিএমও) এক বিবৃতিতে বলেছে, ট্রাম্পের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপচারিতায় মোদি সন্ত্রাস ও সহিংসতামুক্ত পরিবেশ তৈরি এবং আন্তসীমান্ত সন্ত্রাসবাদ রোধের গুরুত্ব তুলে ধরেন। বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এই পরিস্থিতিতে ভারতবিরোধী সহিংস বক্তব্য এবং উসকানি আঞ্চলিক শান্তির জন্য কল্যাণকর নয়।

হোয়াইট হাউসের প্রধান উপপ্রেস সচিব হোগান গিডলি বলেছেন, ট্রাম্প প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে আঞ্চলিক উন্নয়ন এবং মার্কিন-ভারত কৌশলগত অংশীদারত্ব নিয়ে আলোচনা করেছেন। গিডলি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র-ভারত অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করতে থাকবে। দুই নেতা শিগগিরই আবারও আলোচনার প্রত্যাশা জানিয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা