kalerkantho

কাশ্মীরিদের ওপর অমানবিক নিপীড়ন বন্ধ করুন : ইরানি মুফতি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ আগস্ট, ২০১৯ ১৩:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কাশ্মীরিদের ওপর অমানবিক নিপীড়ন বন্ধ করুন : ইরানি মুফতি

ইরানের জ্যেষ্ঠ মুফতি আয়াতুল্লাহ লোতফোল্লাহ সাফি

ভারতের কাশ্মীরে বিপর্যয়কর ঘটনা ঘটছে। এ বিষয়টি প্রতিটি স্বাধীনতা প্রত্যাশী ব্যক্তির হৃদয়কে ভেঙে দেয়। ইরানের জ্যেষ্ঠ মুফতি আয়াতুল্লাহ লোতফোল্লাহ সাফি গোলপেগেনি এক বিবৃতিতে এ কথা বলেছেন। ভারত সরকার কর্তৃক কাশ্মীরিদের ওপর অমানবিক নিপীড়নের নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তা বন্ধের আহবান জানিয়েছেন তিনি। 

আয়াতুল্লাহ সাফি গোলপায়গানি বলেছেন, ভারতের সামরিক বাহিনী কাশ্মীরের জনগনের ওপর নির্দয়ভাবে অত্যাচার চালাচ্ছে। কোন পাপের কারণে কাশ্মীরের নিরীহ লোকদের ওপর নিপীড়ন চালানো হচ্ছে?

তিনি বলেন, কাশ্মীরের বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, মানবাধিকারের তথাকথিত লোকেরা, জাতিসংঘ এবং ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা কেন নিরব রয়েছে? তারা তেন নিরীহ মানুষের বিরুদ্ধে এই অত্যাচারের নিন্দা করে না?

চলতি মাসের শুরুতে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বিশেষ স্বায়ত্তশাসন সুবিধা বিলোপ করে। এরপর থেকেই ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েছে। পাকিস্তান ওই পদক্ষেপকে 'অবৈধ' বলে অভিহিত করেছে। কাশ্মীরকে সাধারণত বিতর্কিত অঞ্চল হিসাবে বিবেচনা করা হয়। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর থেকে এটি ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। দেশ দুটি এই অঞ্চলটিকে কেন্দ্র করে তিনটি যুদ্ধ করেছে।

এদিকে, তেহরানের অন্তর্বর্তীকালীন জুমার নামাজের ইমাম হোজ্জাতোলেস্লাম কাজেম সিদ্দিকি শুক্রবার বলেছেন, কাশ্মীরের বিষয়টি মুসলিম বিশ্বের জন্য অন্যতম ট্র্যাজেডি। 

কাশ্মীরের বিক্ষোভকারীদের ওপর ভারত সরকারের দমন-পীড়ন বিষয়ে তিনি বলেছেন, তাদের (ভারতের) পদক্ষেপ মানুষের বিবেক, ন্যায্যতা এবং এমনকি দেশটির বিদ্যমান আইনের পরিপন্থী।

 জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে শুক্রবার ৫৪ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো কাশ্মীর নিয়ে আলোচনা করার জন্য বৈঠক করা হয়। এই বিষয়টি পাকিস্তান সরকার তাদের একটি কূটনৈতিক অগ্রগতি হিসেব উল্লেখ করেছে। 

এদিকে, শনিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ওই বৈঠককে স্বাগত জানিয়ে টুইটবার্তায় বলেছেন, কাশ্মীর নিয়ে বিরোধের সমাধান নিশ্চিত করা এই বিশ্ব সংস্থার দায়িত্ব। 

সূত্র : তেহরান টাইমস 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা