kalerkantho

নৌকা থেকে ভাইদের সামনেই শিশুকে ছিনিয়ে নিলো কুমির

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ আগস্ট, ২০১৯ ১৮:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নৌকা থেকে ভাইদের সামনেই শিশুকে ছিনিয়ে নিলো কুমির

নৌকায় চড়ে নদী পার হওয়ার সময় দুই ভাইয়ের সামনে থেকে ১০ বছর বয়সী এক শিশুকে ছিনিয়ে নিয়ে খেয়ে ফেলেছে দানবীয় কুমির।

ফিলিপাইনের বালবাক শহরের পাশের একটি নদীতে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে গত রবিবার রাতে। শিশুটি তার ভাইদের সঙ্গে নৌকায় চড়ে নদী পার হচ্ছিল। আর তখনই একটি দানবীয় কুমির পানি থেকে লাফিয়ে উঠে নৌকার উপর থেকে ওই শিশুটিকে ছিনিয়ে নিয়ে ফের পানিতে তলিয়ে যায়।

শিশুটির বাবা রাতভর পুরো নদীজুড়ে তোলপাড় করেও তার সন্তানকে কুমিরটির হাত থেকে উদ্ধার করতে পারেননি।

পরদিন সোমবার সকালে একজন স্থানীয় জেলে ওই শিশুর আধাখাওয়া দেহ উদ্ধার করেন একটি ম্যানগ্রোভ বনের জলাভুমি থেকে।

ফিলিপাইনের বালবাক অঞ্চল পৃথিবীর সবচেয়ে কুমিরবহুল এলাকাগুলির একটি। সম্প্রতি ওই এলাকায় বনাঞ্চল ধ্বংস করে মানুষের বসতি গড়ার হার বেড়ে যাওয়ায় কুমিরদের হামলা বেড়ে গেছে।

ফিলিপাইনে উন্নয়ন ও মানুষের জনসংখ্যা বাড়তে থাকায় কুমিরগুলো পাশের গ্রামগুলোতে হামলা চালাতে বাধ্য হচ্ছে। কারণ মানুষেরা বনাঞ্চল উজাড় করে বসতি স্থাপন করে কুমিরদের বাসস্থানে আগ্রাসন চালাচ্ছে।

২০১৫ সাল থেকেই ওই অঞ্চলে কুমিরদের হামলা উত্তোরত্তর বেড়ে চলেছে।

এস্তুয়ারাইন কুমির নামে পরিচিত ফিলিপাইনের ওই অঞ্চলের লোনাপানির কুমিরগুলো বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রজাতির সরীসৃপ প্রজাতির সদস্য। একেকটা কুমির সর্বোচ্চ ৬ মিটার (২২ ফুট) পর্যন্ত লম্বা এবং এক টন ওজনের হয়ে থাকে।

গত ফেব্রুয়ারিতে বালবাক নদীতে ১২ বছর বয়সী এক বালককে হামলা করেছিলো এমনই আরেকটি দানবীয় কুমির। কিন্তু ওই বালকের ভাইয়েরা নৌকার বৈঠা দিয়ে পিটিয়ে কুমিরটির হাত থেকে তাদের ভাইকে উদ্ধার করে।

২০১৭ সালে এক কাঁকড়া জেলেকে হত্যা করে খেয়ে ফেলে আরেকটি দানবীয় কুমির। ওই জেলেকে খাওয়ার তিন মাস আগে তার এক ভাতিজাকে নিয়ে গিয়েছিলো আরেকটি কুমির।

সূত্র: দ্য মিরর

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা