kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

চীনও মনে করে কাশ্মীর বিষয়ে আমাদের নিরাপত্তা পরিষদে যাওয়া উচিত: কুরেশি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ আগস্ট, ২০১৯ ১৪:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চীনও মনে করে কাশ্মীর বিষয়ে আমাদের নিরাপত্তা পরিষদে যাওয়া উচিত: কুরেশি

কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা লোপ করা নিয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বিশেষ অধিবেশন ডাকার আর্জি জানিয়েছে পাকিস্তান। একথা জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি। এর পরে তিনি বলেন, ভারত যেন আমাদের সংযমকে দুর্বলতা বলে ভুল না করে।

নিরাপত্তা পরিষদে লেখা চিঠিতে কুরেশি বলেছেন, ভারত যদি ফের বলপ্রয়োগের কথা ভাবে, পাকিস্তান বাধ্য হবে জবাব দিতে। আত্মরক্ষার্থে সব শক্তি নিয়েই আমরা জবাব দেব। সেক্ষেত্রে মারাত্মক অবস্থা সৃষ্টি হবে। তা যাতে না হয়, সে জন্যই নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে বসা উচিত।

গত শনিবার পাকিস্তান জানায়, চীনও মনে করে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা লোপ করার বিরুদ্ধে তাদের নিরাপত্তা পরিষদে যাওয়া উচিত। পররাষ্ট্রমন্ত্রী কুরেশি ইতোমধ্যে চীন ঘুরে এসেছেন। তার সঙ্গে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই'র বৈঠক হয়েছে। তিনি কুরেশিকে বলেন, ভারত ও পাকিস্তান- উভয় দেশকেই আমরা বন্ধু মনে করি। আমরা চাই, জাতিসংঘে গৃহীত প্রস্তাব ও সিমলা চুক্তি মেনে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করা হোক।

নিরাপত্তা পরিষদ সত্যিই পাকিস্তানের কথামতো কাশ্মীর নিয়ে বৈঠক ডাকবে কিনা এখনো পরিষ্কার নয়। আগস্টে নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতির পদে রয়েছে পোল্যান্ড। সেদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মঙ্গলবার জানিয়েছেন, নিরাপত্তা পরিষদে পাকিস্তান একটি চিঠি পাঠিয়েছে। আমরা তা নিয়ে আলোচনা করে যথাযথ সিদ্ধান্ত নেব।

পোল্যান্ড আশা প্রকাশ করে জানিয়েছে, ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশই কাশ্মীর নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। তাতে উভয় পক্ষেরই ভালো হবে। ভারতে নিযুক্ত পোল্যান্ডের দূত বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হিসাবে আমরা এই এলাকায় উত্তেজনা কমানোর জন্য পদক্ষেপ করতে রাজি।

ভারত সংবিধানের ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পরে পাকিস্তান ভারতীয় হাই কমিশনারকে বহিষ্কার করে। ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক চুক্তি বাতিল করে দেয়। পাকিস্তান পরে সিদ্ধান্ত নেয়, থর এক্সপ্রেস, সমঝোতা এক্সপ্রেসও বন্ধ করে দেওয়া হবে। পাকিস্তানে ভারতের সিনেমা দেখানোও বন্ধ করা হয়।

পরে ইসলামাবাদ থেকে জানানো হয়, কাশ্মীর নিয়ে ভারতের অবস্থানের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা পরিষদে আবেদন জানানো হবে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী কুরেশি দেশবাসীকে সতর্ক করে দেন, তারা যেন না ভাবে জাতিসংঘে কেউ তাদের জন্য ফুলের মালা নিয়ে অপেক্ষা করে আছে।

সূত্র: দ্য ওয়াল

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা