kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২২ আগস্ট ২০১৯। ৭ ভাদ্র ১৪২৬। ২০ জিলহজ ১৪৪০

গরীব লোকের বিদ্যুৎবিল শত কোটি টাকা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ জুলাই, ২০১৯ ১৬:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গরীব লোকের বিদ্যুৎবিল শত কোটি টাকা!

মোহাম্মদ শামিম

ভারতের উত্তর প্রদেশের এক লোককে ১২০ কোটি রূপিরও বেশি বিদ্যুৎবিল চার্জ করা হয়েছে। লোকটি দাবি করেছে যে, তার বিরুদ্ধে চার্জ করা বিপুল পরিমাণ অর্থের বিলটি সংশোধন করতে তিনি যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন। এই বিল পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় বিদ্যুৎবিভাগ তার বাড়ির বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে।  

জানা গেছে, ওই লোকের নাম শামীম। উত্তরপ্রদেশের হাপুরের চামরি গ্রামে তিনি বসবাস করেন। 

সংবাদ সংস্থা এএনআই জানায়, তিনি বিলের এই ত্রুটি সংশোধন করার জন্য বিদ্যুৎবিভাগ কর্তৃপক্ষের কাছে গিয়েছিলেন। কিন্তু কর্মকর্তারা তাকে ওই বিল পরিশোধ করতে বলেছেন। 

বিলে মুদ্রিত অর্থের পরিমাণ ছিল-১২৮,৪৫,৯৫,৪৪৪ রূপি। ২ কিলোওয়াট সংযোগের জন্য এই বিল ধার্য করা হয়েছে। 

সংবাদমাধ্যম এএনআই-কে শামীম বলেন, আমরা যখন অভিযোগ করতে যাই তখন কেউ আমাদের অভিযোগ আমলে নেয়নি। তখন আমাদের বলা হয় যে, আমরা বিল পরিশোধ না করলে তারা আমাদের বিদ্যুৎসংযোগ পুনরায় চালু করবে না।

শামীম জানান, তিনি সাধারণত প্রতি মাসে গড়ে ৭০০ বা ৮০০ রূপি বিল পরিশোধ করে থাকেন। 

তিনি বলেন, আমি বিষয়টা সবাইকে বোঝাতে চাচ্ছি কিন্তু কেউ শুনছে না। মনে হচ্ছে বিদ্যুৎবিভাগ আমাকে দিয়ে পুরো হাপুর এলাকার বিল পরিশোধ করাতে চায়।

শামীমের স্ত্রী খায়রুন্নিশা বলছেন, আমরা কেবল ফ্যান এবং হালকা বিদ্যুৎ ব্যবহার করি। এই বিলের পরিমাণ কতটা বেশি হতে পারে? আমরা তো খুব গরীব। 

বিদ্যুৎবিভাগের একজন প্রকৌশলী বলেন, এটা কোনো বড় সমস্যা নয়। বিলটি আবার বিদ্যুৎবিভাগে পাঠানো হলে 'প্রযুক্তিগত ত্রুটি' সংশোধন করা হবে।

এ বিষয়ে প্রকৌশলী রাম শরন বলেন, এটা একটি প্রযুক্তিগত ত্রুটি হতে পারে। যদি তারা আমাদের বিলটি প্রদান করে তবে আমরা তাদের সিস্টেমে প্রযুক্তিগত ত্রুটি সংশোধন করার পরে তাদের বিলের একটি হালনাগাদ করে দেবো। এটি কোনও বড় ব্যাপার নয়। 

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে উত্তর প্রদেশের কানৌজেতে একজন লোককে বিদ্যুৎবিল পাঠানো হয়েছিল। মাত্র ২ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ সংযোগে তার বিল এসেছিল ২৩ কোটি টাকা। 

সূত্র : এনডিটিভি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা