kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

আসাম ও বিহারে বন্যা; নিহত বেড়ে ১৪৯

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুলাই, ২০১৯ ১১:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আসাম ও বিহারে বন্যা; নিহত বেড়ে ১৪৯

আসামে বন্যা

বন্যার কারণে এখনও পর্যন্ত  ভারতের আসাম এবং বিহারে মোট ১৪৯ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা ছাড়িয়েছে এক কোটি ১৫ লাখ। শুধুমাত্র বিহারেই বন্যাজনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে ৯২ জনের। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার থেকে শুক্রবারের মধ্যে মারা গেছে ১৪ জন। আর আসামে এই কয়েকদিনে মারা গেছে ৪৭ জন। এর মধ্যে শুক্রবার মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের।

বিহার বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত সপ্তাহে নেপালে প্রবল বৃষ্টিপাতের জেরে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিহারের সীতামারি জেলা। শুধুমাত্র এখানেই মৃত্যু হয়েছে ২৭ জনের। এছাড়া গোটা রাজ্যের মোট ১২টি জেলা বন্যাকবলিত। আর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মোট ৬৬ লক্ষ ৭৬ হাজার মানুষ। গোটা রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে দুর্গতদের প্রয়োজনীয় ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। বিভিন্ন জায়গায় অস্থায়ী ত্রাণ শিবিরও খোলা হয়েছে। বিপর্যস্ত মানুষের অ্যাকাউন্টে সরাসরি ১৮০ কোটি টাকা পাঠানোও হয়েছে সরকারের পক্ষে।

অন্যদিকে, আসাম স্টেট ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটি (এএসডিএমএ)-র পক্ষে একটি বুলেটিন প্রকাশ করা হয়েছে রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কে। তাতে উল্লেখ করা হয়েছে, এখনও পর্যন্ত ২৭টি জেলার তিন হাজার ৭০৫টি গ্রামের ৪৮ লক্ষ ৮৭ হাজার মানুষ বন্যাকবলিত। গত কয়েকদিনে মোট ৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এখনও পর্যন্ত জলের তলায় রয়েছে একলক্ষ ৭৯ হাজার হেক্টর কৃষিজমি।

কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যান ও পবিতোড়া ওয়াইল্ড লাইফ স্যাংচুয়ারি ৯০ শতাংশ এলাকা জলমগ্ন। হরিণ-সহ অন্য পশুরা কার্বি আংলং হিলের উঁচু জায়গায় আশ্রয় নিয়েছে। এর মধ্যে শুক্রবার ধুবরি জেলায় পাঁচজন, বরপেটা এবং মরিগাঁও জেলায় তিনজন করে মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা