kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

অবিবাহিত তরুণীদের মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধে কংগ্রেস বিধায়কের সমর্থন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জুলাই, ২০১৯ ১৬:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অবিবাহিত তরুণীদের মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধে কংগ্রেস বিধায়কের সমর্থন

বিয়ের আগে তরুণীরা মোবাইল ব্যবহার করতে পারবে না বলে আইন জারি করা হয়েছে ভারতের গুজরাটের বানাসকাণ্ঠার দান্তিওয়াড়া গ্রামে। প্রথমে অবিবাহিত তরুণীদের মোবাইল ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ঠাকোর সম্প্রদায়। তাদের সেই নিষেধাজ্ঞা সমর্থন করেছেন কংগ্রেস বিধায়ক গানিবেন ঠাকোর। বিতর্কিত এই নিষেধাজ্ঞাকে ঘিরে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

ওই সম্প্রদায়ের অবিবাহিত তরুণীদের আধুনিক জীবনযাত্রা মেনে নিতে পারছে না ঠাকোর সম্প্রদায়। সে কারণে তরুণীদের জীবন যাপনের পদ্ধতি তারা ঠিক করেছে।

আর সেটা করেই আলোচনায় আসেন গুজরাটের বানাসকাণ্ঠার দান্তিওয়াড়া গ্রামের ঠাকোর সম্প্রদায়ের কমপক্ষে আটশ জন। চলতি বছরের ১৪ জুলাই দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করে তারা এসব ঠিক করেন।

সেই বৈঠকেই নির্ধারিত হয় যে, অবিবাহিত তরুণীদের মোবাইল ব্যবহার এবং অন্য সম্প্রদায়ে বিয়ে করা যাবে না। ঠাকোর সম্প্রদায়ের কোনো মেয়ে অন্য সম্প্রদায়ের কোনো ছেলেকে বিয়ে করলে তার দায় বর্তাবে মেয়েটির বাবা-মায়ের ওপর। 

ওই কাজের জন্য মেয়েটির পরিবারকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা দিতে হবে। এ কাজ যদি ঠাকোর সম্প্রদায়ের কোনো মেয়ে করে তাহলে ছেলেটির পরিবারকে দুই লাখ টাকা জরিমানা দিতে হবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

অবিবাহিত নারীদের হাতে মোবাইল থাকলে তারা সোশ্যাল মিডিয়ার দিকে ঝুঁকে পড়বে। এতে তাদের পড়াশোনায় ক্ষতি হবে বলেই মনে করেন ঠাকোর সম্প্রদায়ের নেতারা। সে কারণে মোবাইল ব্যবহারের ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

ঠাকোর সম্প্রদায়ের সিদ্ধান্তের কথা ছড়িয়ে পড়তেই উঠেছে সমালোচনার ঝড়। এ সময়ে এসেও কীভাবে অবিবাহিত নারীদের মোবাইল ব্যবহার এবং অন্য সম্প্রদায়ে বিয়ের ক্ষেত্রে ফতোয়া জারি হতে পারে, তা নিয়ে মাথাচাড়া দিয়েছে বিতর্ক। তবে সেটা সত্ত্বেও ঠাকোর সম্প্রদায়ের এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেছেন কংগ্রেস বিধায়ক গানিবেন ঠাকুর। এই সিদ্ধান্তের জেরে অবিবাহিত নারীরা কোনোভাবেই ‘বিপথে চালিত’ হতে পারবেন না বলেই সাফাই তার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা