kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

হাতির আত্মার শান্তি কামনায় শ্রাদ্ধ-কীর্তন, ন্যাড়া হবেন গ্রামবাসীরা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ১৬:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাতির আত্মার শান্তি কামনায় শ্রাদ্ধ-কীর্তন, ন্যাড়া হবেন গ্রামবাসীরা!

সম্প্রতি ৩টি পূর্ণবয়স্ক হাতি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায়

চলতি মাসের ৯ তারিখে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রামের সাতবাকি গ্রামে একটি বুনো হাতির পালকে তাড়া করেন বনকর্মীরা। সে সময় ৩টি পূর্ণবয়স্ক হাতি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায়। গ্রামবাসীরা সেই হাতিগুলোর আত্মার শান্তি কামনায় শ্রাদ্ধানুষ্ঠান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সমস্ত রীতি মেনে যাগযজ্ঞ করা হবে, বসবে কীর্তনের আসরও। আগামী ২১ তারিখ হবে ঘাটকার্য, ন্যাড়া হবেন গ্রামবাসীরা। আর সেই আয়োজনের খরচ জোগাড় করতে বিনপুরের কাঁকো অঞ্চলের সাতবাঁকি গ্রামের বাসিন্দারা দ্বারে-দ্বারে ঘুরছেন। 

জানা গেছে, সাতবাঁকি গ্রামের বাসিন্দা বিরেন মাহাতো এবং তার ভাইয়ের জমিতে ঝুলে থাকা বৈদ্যুতিক লাইনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ওই তিনটি হাতি মারা যায়। 

বিরেন মাহাতো জানান, ওই তিনটি হাতির মৃত্যুর পর থেকে চুল ,দাড়ি, নখ কাটেননি তিনি। মাথা মুড়িয়ে শ্রাদ্ধের কাজে বসবেন তারা। প্রায় ৬ হাজার  মানুষকে খিচুড়ি খাওয়ানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। 

এদিকে, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তিন পূর্ণবয়স্ক হাতির মৃত্যুর ঘটনার পর থেকেই দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছে বিদ্যুৎদপ্তর ও বনদপ্তর। বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল উঠেছে। 

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, প্রায় ছ'মাস ধরে গ্রামের জমির ওপরেই ঝুলে রয়েছে বিদ্যুতের তার। এ বিষয়ে বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থার অফিসে অভিযোগ করেও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। এই ঘটনায় বিদ্যুৎ দপ্তরের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে বনদপ্তর। 
 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা