kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

বিদ্যাসাগরের মূর্তি পুনঃস্থাপন করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা    

১১ জুন, ২০১৯ ১৮:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিদ্যাসাগরের মূর্তি পুনঃস্থাপন করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতার কলেজ স্ট্রিটের হেয়ার স্কুল প্রাঙ্গণে বিদ্যাসাগরের মূর্তি পুনঃস্থাপন করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মূর্তি পুনঃস্থাপন করে তাতে মাল্যদান করে শ্রদ্ধা জানান অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তি। এদিনের অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও মঞ্চে ছিলেন সাংস্কৃতিক জগতের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব।

এ সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে বর্ণপরিচয় মোছা যাবে না। বাংলার সংস্কৃতিকে ভোলানোর চক্রান্ত করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, লোকসভা নির্বাচনের শেষ দফা ভো‌টের আগে কলকাতায় অমিত শাহ'র প্রচার মিছিলের সময় তাণ্ডবে ভেঙে গিয়েছিল বিদ্যাসাগরের মূর্তিটি। কথামতোই একমাসের কম সময়ে ধাতুর মূর্তিটি স্থাপিত হলো আজ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জয় গোস্বামী, সুবোধ সরকার, আবুল বাশার, শুভাপ্রসন্ন থেকে নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি, সোহিনী সেনগুপ্ত, অরিন্দম শীল রাও। তারা ব্যক্ত করলেন নিজেদের অনুভূতি। বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানালেন মুখ্যমন্ত্রীকে। এতো দ্রুত মূর্তি পুনঃস্থাপন করে দেওয়ার জন্য।

মমতা অমিত শাহকে কটাক্ষ করে বলেন, আজ যিনি কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, তার মিছিলে গুণ্ডামি হয়েছিল। এই মূর্তি কোনো বাচ্চা ভাঙেনি। বুড়ো খোকারা মূর্তি ভাঙলে ভাবতেই হয়। যারা আম্বেদকর, পেরিয়ারের মূর্তি ভেঙেছে তারা তো রামমোহন, বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙবেই। আমরাও তো ৩৪ বছর পর ক্ষমতায় এসেছি। আমাকে তো লেনিনের মূর্তি ভাঙতে হয়নি।

বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় বাংলার মননে আঘাত লেগেছে মন্তব্য করে মমতা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‌মনে রাখবেন বাংলা ফেলনা নয়, বাংলা খেলনা নয়। বাংলাকে যারা অবজ্ঞা করে তাদের জন্য আমি ভয়ঙ্কর। রামকৃষ্ণ মিশন বা ভারত সেবাশ্রমের সন্ন্যাসীরাও গেরুয়া পরেন। সবার দ্বারা গেরুয়া হয় না।

বিদ্যাসাগর কলেজ ভালোভাবে সাজিয়ে তুলতে রাজ্য সরকার এক কোটি টাকা দিচ্ছে বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে সকলে সাধুবাদ জানালেও এদিনের অনুষ্ঠানে সমালোচনার কাঁটাও ছিল। একদিকে এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তার নিগ্রহের প্রতিবাদে রাজ্যজুড়ে বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে কর্মবিরতিতে নেমেছেন জুনিয়র চিকিৎসকরা। সেখানে হস্তক্ষেপ না করে মুখ্যমন্ত্রীর মূর্তি উন্মোচনে ব্যস্ত, তা নিয়েও সমালোচনা শুরু হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা