kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

পশ্চিমবঙ্গে পায়ের তলার মাটি হারাল বামপন্থীরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ মে, ২০১৯ ১৬:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পশ্চিমবঙ্গে পায়ের তলার মাটি হারাল বামপন্থীরা

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের বুথফেরত জরিপের ফল সত্যি হতে চলেছে। নিরঙ্কুশ জয়ের পথে ক্ষমতাসীন বিজেপি। আর এর ফলে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের লোকসভা নির্বাচনে আসন শূন্যই থেকে গেল বামপন্থী বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলো। 

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক মানচিত্রের ৪২ আসনের লড়াইয়ে কোনও আসনে এক ও দুই নম্বর স্থানে নেই বামপন্থীরা। 

এবার বামপন্থীরা ব্রিগেডে লোক জড়ো করেছিল। কিন্তু তার কিয়দংশও নিজেদের ভোটবাক্সে যায়নি। বাম-ভোট কার্যত গেরুয়া বাক্সে পড়েছে। সেই কারণেই বামপন্থীদের ভোট নেমে গিয়েছে সাত শতাংশে। উল্টোদিকে বিজেপির ভোট বিপুল বেড়ে ৩৯ শতাংশ হয়েছে। তৃণমূল তাদের ৪৫ শতাংশ ভোট ধরে রাখতে সমর্থ হয়েছে। আর কংগ্রেস এখন পর্যন্ত পেয়েছে পাঁচ শতাংশ ভোট। 

এর আগে ২০১৪ সালের নির্বাচনে বামপন্থীরা দুটি আসনে জয়ী হয়েছিল। প্রায় সমস্ত আসনেই বামপন্থীরাই ছিল দ্বিতীয় অবস্থানে। কিন্তু পাঁচ বছরের মধ্যে সিপিএম বা বামফ্রন্ট নেমে গিয়েছে তিন বা চার নম্বর স্থানে। এবার প্রায় সব আসনেই সম্মুখ সমরে তৃণমূল বনাম বিজেপি। 

পশ্চিমবঙ্গে ১৯৭৭ সালে থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত ৩৪ বছর শাসন করেছে বামফ্রন্ট। ২০১১ সালে বামফ্রন্ট শাসনের অবসান ঘটলেও ২০১৬ সালে কংগ্রেসকে সঙ্গে নিয়ে তৃণমূলকে চ্যালেঞ্জ দেওয়ার মতো জায়গায় ছিল বামপন্থীরা। কিন্তু শেষ তিন বছরে গেরুয়া ঝড়ের কাছে ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে গিয়েছে তাদের ভোটব্যাংক।  

গতবার বামপন্থীরা জিতেছিল রায়গঞ্জ ও মুর্শিদাবাদ আসনে। এবার এই দুই আসনে কার্যত উড়ে গিয়েছে সিপিএম। মুর্শিদাবাদে এগিয়ে তৃণমূল, রায়গঞ্জে এগিয়ে বিজেপি। দুটি কেন্দ্রেই তৃতীয় বা চতুর্থ স্থানে বিজেপি। আর যাদবপুরেও সিপিএম পিছিয়ে গিয়েছে তৃতীয় স্থানে। ৩৪ বছরের শাসক দল বামপন্থীরা লিলিপুটে পরিণত হল। এই প্রথম রাজ্য থেকে কোনও আসন পেল না সিপিএম বা বামপন্থীরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা