kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় শোকস্তব্ধ কলকাতা

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা প্রতিনিধি   

১৫ মে, ২০১৯ ১৪:৪৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় শোকস্তব্ধ কলকাতা

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর রোড শো ঘিরে উত্তেজনার মাঝে হামলা চলে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ও বিদ্যাসাগর কলেজে। ভাঙচুর করা হয় ২০০ বছরের পুরনো বিদ্যাসাগরের  ঐতিহ্যবাহী মূর্তিও। আর্মহার্স্ট স্ট্রিট থানা ও জোড়াসাঁকো থানায় এফআইআর করা হয় অমিত শাহের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৫৯ জনকে।

মঙ্গলবারের ঘটনার জন্য অমিত শাহের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়েছে অভিযোগ। বুধবার সকালে দিল্লিতে দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেন অমিত শাহ।  তিনি এফআইআর-এর প্রসঙ্গ তুলে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়েছে। এফআইআরকে আমরা ভয় পাই না। বিজেপি কর্মীরা এতে ভয় পায় না। তৃণমূল ভয় পেয়ে এসব করছে।’

এমনকি এ দিনের রোড শোয়ের সময় তাঁর ওপরেই হামলা করা হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন বিজেপি সভাপতি। তিনি বলেন, ‘কয়েকদিন আগে মমতা বলেছিলেন, বদলা নেবেন। এ সব তারই ফল। আমার রোড শোয়ের আগেই আমার কাট আউট ভাঙা হয়েছে। শো চলাকালীন আমাদের মিছিলে পেট্রল বোমা ছোঁড়া হয়েছে। ওদের উদ্দেশ্য ছিল আমাদের মিছিলে হামলা চালানো। সিআরপিএফ ছিল বলেই আমি বেঁচে ফিরতে পেরেছি।’

তিনি আরো বলেন,  ‘মমতা চাইলে  নিরপেক্ষ  সংস্থা দিয়ে  এই ঘটনার  তদন্ত করতে পারেন।’

গতকাল রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হয়েছে। আগুন জ্বালানো হয়েছে। এটা ওর ২০০ বছর। কোনো রাজনৈতিক দলের এ-রকম হাঙ্গামা কখনো দেখিনি। বিহার-রাজস্থান থেকে গুন্ডা এনে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। নিন্দার ভাষা নেই। আমি লজ্জিত এবং ক্ষমাপ্রার্থী। বাংলার মানুষ হয়ে আমরা ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরকে সম্মান দিতে পারি না বিজেপির গুন্ডাদের জন্য।’

এদিকে , বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে বুধবার  বিকেলে ধিক্কার মিছিলে হাঁটবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বেলেঘাটার গান্ধী ভবন থেকে সিমলা স্ট্রিটে বিবেকানন্দের বাড়ি হয়ে শ্যামবাজার পর্যন্ত পদযাত্রা হবে৷ সাড়ে চারটে নাগাদ শুরু হওয়া মিছিলে বিভিন্ন মনীষীর ছবি হাতে হাঁটবেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ইতিমধ্যেই জেলায় জেলায় তৃণমূলের তরফে ধিক্কার মিছিল শুরু হয়েছে৷

অপরদিকে, ঘটনার তীব্র ধিক্কার জানিয়েছে রাজ্য বামফ্রন্টও৷ বুধবার সকালে এ নিয়ে পথে নেমেছেন বিমান বসু, সীতারাম ইয়েচুরিরা৷ কলেজ স্কোয়ারে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে প্রতিবাদে সরব হন তাঁরা৷

বিমান বসু এ বিষয়ে বলেন, ‘বহু ইতিহাস, সংস্কৃতি বিজড়িত কলেজে ভাঙচুর, মূর্তি ভাঙার পিছনে কারা দায়ী, তা স্পষ্ট নয়৷ ঘটনার প্রকৃত, নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া উচিত৷’ সবমিলিয়ে, শেষ দফায় শহরে ভোটের আগে বিদ্যাসাগর মূর্তি চুরমার হওয়ার ঘটনায় নতুন করে রাজনৈতিক পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে৷

অন্যদিকে বিদ্যাসাগর কলেজে ঢুকে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনার নিন্দায় সরব হয়েছে বিভিন্ন মহল। ঘটনার নিন্দা করে কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন কবি শঙ্খ ঘোষ, সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, নকশাল নেতা অসীম চট্টোপাধ্যায়, এবং নেতাজি পরিবারের সদস্যা এবং প্রাক্তন সাংসদ কৃষ্ণা বসুসহ আরো অনেকে।

মন্তব্য