kalerkantho

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনে বড় ইস্যু বাংলাদেশ

অনিতা চৌধুরি, কলকাতা প্রতিনিধি   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ২১:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনে বড় ইস্যু বাংলাদেশ

মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের উদাহরণ দিয়ে এনআরসি বা নাগরিক তালিকা করানোর সিদ্ধান্তের পক্ষে যুক্তি দিয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 

তিনি বলেন, বাংলাদেশ মুসলিম প্রধান দেশ হয়েও রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার ফেরত পাঠাতে চাইছে। ঠিক সে রকমই আমরাও নিজের দেশের লোকের স্বার্থ রক্ষার্থে অনুপ্রবেশকারীদের ফেরত পাঠাতে চাই। বিজেপি সরকার ক্ষমতায় এলে সারাদেশে এনআরসি  চালু হবে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে কলকাতা প্রেসক্লাবে লোকসভা নির্বাচনের আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে দিলীপ ঘোষ কালের কণ্ঠের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে এ কথা জানান। 

কিছুদিন আগে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ তার নির্বাচনী সভায় ঘোষণা করেন, শুধু পশ্চিমবঙ্গে নয়, সারা ভারতে এনআরসি বা নাগরিক তালিকা করা হবে।

এবার লোকসভা নির্বাচনে নাগরিক তালিকা একটি বড় ইস্যু। আর তাই বারবার বাংলাদেশ থেকে আসা মানুষদের নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। আর সেই প্রশ্ন তুলছেন বিজেপি নেতারা এবং আক্রমণ করছেন মমতা ব্যানার্জিকে। 

দিলিপ বলেন, বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের নিয়ে এসে তৃণমূল ভোট দেওয়াচ্ছে। বাংলাদেশি তারকাদের এনে ভোটের প্রচার করাচ্ছে তৃণমূল।

রোহিঙ্গারা যে ভোট দিচ্ছে সে কথা দ্বিতীয়বার দিলীপ বাবু বললেও নিজের বক্তব্যের সমর্থনে কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি। 

তিনি বলেন, আমাদের দেশের জনসংখ্যা অনেক বেশি। তাই আমরা অন্য দেশের মানুষ চাই না। এনআরসি করে অনুপ্রবেশকারীদের ফেরত পাঠাবোই আমরা। 

তবে তিনি এও জানান যে, বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান থেকে আসা অমুসলিম শরণার্থীদের জন্য ভারতের দরজা সবসময় খোলা থাকবে। 

দিলিপ বলেন, নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের মাধ্যমে আমরা সেই প্রতিশ্রুতি রক্ষা করব।

বিজেপির এই রাজনীতির তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন মমতা। তিনি ঘোষণা দিয়েছেন, ধর্মের নামে মেরুকরণের এই চেষ্টা সফল হতে দেবেন না। 

মন্তব্য