kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

ট্রেন ঘণ্টায় যাবে ১২শ' কিমি, কাজ শুরু অস্ট্রেলিয়ায়, ক্রমশ সারা বিশ্বে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৩:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ট্রেন ঘণ্টায় যাবে ১২শ' কিমি, কাজ শুরু অস্ট্রেলিয়ায়, ক্রমশ সারা বিশ্বে

হাইপারলুপ এমন একটি পদ্ধতি যেখানে প্লেনের গতি দিতে 'টিউবুলার পড' নামের প্রযুক্তির ব্যবহার করা হয়েছে।

ট্রেনের যাত্রীরা সিডনি থেকে মেলবোর্ন মাত্র আধ ঘণ্টায় মধ্যেই ভ্রমণ করতে পারবেন। নতুন প্রযুক্তির 'ফ্লোটিন' ট্রেনের মাধ্যমে এই ভ্রমণ করতে পারবেন যাত্রীরা। এই প্রকল্পে নিয়োজিত রয়েছে ভার্জিন হাইপারলুপ ওয়ান নামের একটি কম্পানি। 

কম্পানিটি জানিয়েছে, ট্রেনটিতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করা হচ্ছে। এটি চলবে এক ঘণ্টায় ১২০০ কিলোমিটার বা এর গতিবেগ হবে ঘণ্টায় ১২০০ কিমি।

এতে অস্ট্রেলিয়ার শহরগুলোর মধ্যে যাতায়াত দূরত্ব কমে যাবে অনেকটাই। 

ওই কম্পানিটিকে সহায়তা করছেন ব্রিটিশ ধনকুবের রিচার্ড ব্রান্সন।

তিনি জানান, কম্পানিটি আগামীদিনের প্রযুক্তি তৈরীর পাশাপাশি ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বব্যাপী হাইপারলুপ নেটওয়ার্ক স্থাপন করতে চায়।

ভার্জিনের অভিমত, ওই ট্রেনে সিডনি থেকে ব্রিসবেন ভ্রমণে মাত্র একঘণ্টা সময় লাগবে। আর ক্যানবেরা থেকে সিডনিতে যেতে লাগবে মাত্র ১৪ মিনিট। 

হাইপারলুপ এমন একটি পদ্ধতি যেখানে প্লেনের গতি দিতে 'টিউবুলার পড' নামের প্রযুক্তির ব্যবহার করা হয়েছে। এতে টিউবের মাধ্যমে শূন্যস্থান তৈরি করে নিম্নচাপে বায়ু নির্গমনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। 

টিউবটি ভূমির ওপরে থাকবে। এতে বিরুদ্ধ আবহাওয়া এবং ভূমিকম্প থেকে রক্ষা পাবে ট্রেনটি। 

ট্রেনটিতে ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক প্রপালশন সিস্টেম ব্যবহার করা হচ্ছে। গতি বাড়াতে এই ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ট্রেনের বগিগুলো স্বল্পতম ও দীর্ঘতম দূরত্বের সাপেক্ষ এমনভাবে বিন্যস্ত করা হয়েছে যাতে অন্তত ১০ জন যাত্রীকে ধারণ করা যাবে। 

জানা গেছে, মার্কিন কম্পানি হিলারলুপ ট্রান্সপোর্টেশন টেকনোলজিস (হাইপারলুপ টিটি)-র সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামতে হবে ভার্জিনকে।

মার্কিন কম্পানি হাইপারলুপ টিটি ২০১৮ সালের শেষের দিকে অস্ট্রেলিয়ার সরকারকে একই ধরনের প্রকল্পের প্রস্তাব দিয়েছিল। 

সূত্র : ডেইলি মেইল 

মন্তব্য