kalerkantho

ভোট মেশিনে জ্যান্ত সাপ, আতঙ্কে ছিটকে গেলেন ভোটার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৯:৫২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভোট মেশিনে জ্যান্ত সাপ, আতঙ্কে ছিটকে গেলেন ভোটার

ইভিএম মেশিনের যে বোতামই টেপা যাক না কেন ভোট যাবে শাসক দলে এমন এক অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় করেছিল ভারতের বিরোধী দলের নেতা নেত্রীরা। সেই অভিযোগ মিথ্যে প্রমাণ করতে দেশটির শাসক দলের যেমন কোনও চেষ্টার ত্রুটি ছিল না তেমনই বিরোধীরাও বিভিন্ন সময়ে সংবাদ মাধ্যমের সামনে ইভিএম নিয়ে তাদের অভিযোগ যে সঠিক তারও নানা প্রমাণ পেশ করার চেষ্টা করেছে। 

বিতর্কটি এখনও পর্যন্ত অমীমাংসিত থেকে গিয়েছে। সেই বিতর্ককে প্রশমিত করতে আনা হয়েছে ভিভিপ্যাট। কিন্তু ভিভিপ্যাট-ও যে এমন ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে সেটা ভারতের শাসক বা বিরোধীরা কেউই হয়তো আন্দাজ করতে পারেনি।

কেরালায় কান্নুর জেলার মাইল কান্ডাক্কাই- এর একটি নির্বাচনী বুথে ভিভিপ্যাটের মধ্যে থেকে হঠাৎ উঁকি মারে একটি সাপ। সকাল থেকেই এই বুথটিতে ভোটের হার ছিল যথেষ্ট বেশি। বুথের ভেতরে ভোট কর্মী ছাড়াও ছিলেন নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী দলের এজেন্ট। বুথের ভেতরে বা বাইরে তেমন কোনও উত্তেজনাও ছিল না। ভোট হচ্ছিল নির্বিঘ্নে। এমন সময়েই এক ভোটারের চোখ পড়ে ভিভিপ্যাট মেশিনের ওপর। বস্তুটি যেহেতু এই নির্বাচনে অনেকাংশেই নতুন, ফলে সমস্ত ভোটারদেরই কৌতূহলও যথেষ্ট।

কিন্তু ভিভিপ্যাটের মধ্যে কিছু নড়চড়ে উঠবে এমন কথা কোনও আলোচনাতে শোনা যায়নি। ফলে প্রাথমিক ভাবে চোখের ভুল ভাবলেও আসল ব্যাপরটা ধরা পড়ে অচিরেই। একটি জ্যান্ত সাপ নির্বাচনী উত্তাপ থেকে বাঁচতে আশ্রয় নিয়েছে খোদ ভোট মেশিনে। প্রচণ্ড আতঙ্কে চিৎকার করে সেই ভোটার ছিটকে বেরিয়ে আসে ঘেরাটোপের বাইরে।

ভোট কর্মী ও দলীয় এজেন্টরা সন্ত্রস্ত হয়ে ওঠেন। স্থগিত হয়ে যায় ভোটগ্রহণ। প্রাথমিক ভাবে বিষয়টি বুঝতেই যথেষ্ট বেগ পেতে হয় দায়িত্বে থাকা পোলিং অফিসারকে কারণ এমন সম্ভাবনার কথা কোনও নির্বাচনী ট্রেনিংয়ে বলা হয়নি। তাছাড়া সাপ দেখা আর সাপ ধরার মধ্যে ফারাক বিস্তর। কিন্তু ভোট গ্রহণ জারি রাখতেই হবে। একটি সাপের কাছে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ম্লান হয়ে গিয়েছে এই বার্তা ছড়িয়ে পড়তে দেওয়া যায় না। অবশেষে বুথের বাইরে অপেক্ষারত স্থানীয় ভোটদাতাদের সাহায্যে সাপটিকে ধরা হয় এবং আবার চালু হয় ভোটগ্রহণ পর্ব।

ভোট কারচুপি নিয়ে এরকম কথা বিভিন্ন মহলে ঘুরে বেড়াচ্ছে যে কোনও সরীসৃপ দিয়ে ভোট লুঠ করার অভিনব পন্থা হয়তো ইতিমধ্যে আবিষ্কৃত হয়ে থাকবে এমনটা ভাবাও বিচিত্র কিছু নয়। যদিও সিপিআই-এম প্রার্থী পিকে শ্রীমাথি, কংগ্রেস প্রার্থী কে সুরেন্দ্রন এবং বিজেপি প্রার্থী সিকে পদ্মনাভন সাপের আকস্মিক নির্বাচনী উপস্থিতি নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও অভিযোগ করেননি।

সূত্র: দ্য ওয়াল ডট ইন

মন্তব্য