kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২২ আগস্ট ২০১৯। ৭ ভাদ্র ১৪২৬। ২০ জিলহজ ১৪৪০

পাঁচ রাজ্যেই পরাজিত বিজেপি, কংগ্রেসের জয় তিনটিতে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২৩:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাঁচ রাজ্যেই পরাজিত বিজেপি, কংগ্রেসের জয় তিনটিতে

ভারতের পাঁচটি রাজ্যে অনুষ্ঠিত বিধানসভা নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল বিজেপির ভরাডুবি হয়েছে। অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দল জয় পেয়েছে তিনটিতে।

মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিশগড়ে দেশটির প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস ও তেলেঙ্গানায় ‘তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতি’(টিআরএস) ও মিজোরামে ‘মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্ট(এমএনএফ) জয় পেয়েছে। কোনও রাজ্যেই জয়ের দেখা পায়নি ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।

মঙ্গলবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার জানিয়েছে, মধ্যপ্রদেশে ২৩০টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস ১১৪টি ও প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি ১০৯টি; রাজস্থানে ২০০টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস ১০১টি ও প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি ৭৩; ছত্তিশগড়ে ৯০টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস ৬৮টি ও প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ১৬টিতে জয় পেয়েছে।

অন্যদিকে, তেলেঙ্গানায় ১১৯টি আসনের মধ্যে টিআরএস ৮৮টি ও প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেস-তেলেগু দেশম পার্টি(টিডিপি) ২১টি এবং মিজোরামে ৪০টি আসনের মধ্যে এমএনএফ ২৬টি ও প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেস ৫টিতে জয় পেয়েছে।

কংগ্রেসের সভাপতিত্ব গ্রহণের এক বছরের মধ্যেই বেশ বড় ধরনের সফলতা পেলেন রাহুল গান্ধি। ২০১৩ সালের বিধানসভা নির্বাচনে মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ে কংগ্রেসকে গো-হারা হারায় বিজেপি। কংগ্রেসের সেই ক্ষতে যেন মলম লাগালেন রাহুল।

এদিকে সোমবার দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর উরজিত প্যাটেল এবং মঙ্গলবার সরকারের অর্থনৈতিক উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য সুরজিৎ ভল্লার পদত্যাগের পর এই পরাজয় ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে যেন কুঠারের আঘাত।

অন্যদিকে নির্বাচনের পর ১৬ ডিসেম্বর পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়িতে অনুষ্ঠেয় প্রধানমন্ত্রী মোদির সভা স্থগিত করা হয়েছে। বিজেপি জানিয়েছে, ১৪ ডিসেম্বর রথযাত্রা নিয়ে সমাধানসূত্র বের হতে পারে। একদিনের ব্যবধানে সভা করা সম্ভব নয়। তাই সভাটি স্থগিত করা হলো। পরে সভার দিনক্ষণ চূড়ান্ত করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা