kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৮। ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৩ সফর ১৪৪৩

ফুটফুটে রামিনের দেহে ক্যান্সার, অস্ত্রোপচারে টাকা প্রয়োজন

অনলাইন ডেস্ক   

৭ আগস্ট, ২০২১ ১৪:২৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফুটফুটে রামিনের দেহে ক্যান্সার, অস্ত্রোপচারে টাকা প্রয়োজন

চার বছরের ফুটফুটে শিশু রামিন। যে দেহটাতে এখন শিশুসুলভ ছটফটে ভাব থাকবে, সেখানে দানা বেঁধেছে ক্যান্সার। ভারতে চিকিৎসাধীন আছে সে। ইতোমধ্যে তার চিকিৎসার পেছনে অনেক টাকা খরচ হয়ে গেছে। আগামী ২০ আগস্টের মধ্যে তার অস্ত্রোপচারের জন্যে ৭ লাখ টাকা জমা দিতে হবে। এ পর্যায়ে এসে সবার কাছে সহায়তা চেয়েছেন অসহায় মা। এ নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন তিনি। নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ থানার সিরাজপুরে গ্রামের তাদের বাড়ি। তার মায়ের পোস্টটা তুলে দেওয়া হলো।

'আমার ছেলেটাকে আপনারা সাহায্য করেন। অনেক টাকার দরকার। অ্যাড্রেনাল ক্যান্সারের (Neuroblastoma) চিকিৎসায় মুম্বাইয়ের টাটা মেমরিয়াল হাসপাতালে আজ অনেক দিন ভর্তি। সামনের ২০ আগস্টের মধ্যে সাত লক্ষ টাকা জমা দিতে হবে সার্জারির জন্য। হাতে যা ছিল সব শেষ। আপনারা প্লিজ সাহায্য করেন। কিছু না কিছু পাঠান, পাঁচ টাকা হলেও পাঠান।
রামিন, বয়স -৪।

বিকাশ ও নগদ নম্বর: কুলসুম আরা বেগম - 01677611898 (পার্সোনাল) 
বিকাশ ও নগদ নম্বর: আলা উদ্দিন - 01728599456 (পার্সোনাল) 
নগদ ও বিকাশ: 01894858082 (Personal)

রামিনের আম্মুর (ফারজানা ইয়াসমিন  বিজলী) হোয়াটসঅ্যাপ ভারতীয় নম্বর- 919335569531। 
ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর- কুলসুম আরা বেগম- 3802601011434 ( সোনালী ব্যাংক, বসুরহাট শাখা, কোম্পানীগঞ্জ, নোয়াখালী)।'

রামিনের খালা কুলসুম আরা বেগম জানালেন, এই ছোট্ট শিশুটার এই অবস্থা আমারা মেনে নিতে পারছি না। আমরা সবাই মিলে শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করেছি ওর চিকিৎসার খরচ জোগানোর। কিন্তু আমাদের সাধ্য ও সামর্থ্যের শেষ বিন্দু পর্যন্ত দিয়ে দিয়েছি। এখন একান্ত বাধ্য হয়েই এমন শিশুটার চিকিৎসার জন্য সহায়তার পোস্টটি করেছি। 

রামিনের মামা মোজাম্মেল হক জানান, রামিনের কিডনি এবং লিভারের মাঝে যে ফাঁকা জায়গা রয়েছে সেখানে টিউমার হয়েছে। এখন কেমোথেরাপি চলছে। দ্রুত তার সার্জারি করা প্রয়োজন। এর জন্য ২০ আগস্টের মধ্যে হাসপাতালে ৭ লাখ টাকা জমা দিতে হবে। এই টাকার জোগান দেয়া আমাদের পক্ষে দুরূহ হয়ে পড়েছে। 

রামিনের নানা আবুল কালাম সেলিম এলাকার স্বনামধন্য শিক্ষক। তিনি এলাকায় সেলিম স্যার নামে সুপরিচিত। নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জের চরকাঁকড়া একাডেমী উচ্চ বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষকতা করছেন। নাতির জন্য ভেঙে পড়েছেন তিনি। জানালেন, দেশে-বিদেশে আমার হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী ছড়িয়ে রয়েছে। আমার এই দুঃসময়ে আমি আশা করবো তারা যেন আমার পাশে এসে দাঁড়ায়। পাশপাশি দেশের বিত্তশালীরা যদি এগিয়ে আসেন, আমার নাতি সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসতে পারে। 



সাতদিনের সেরা