kalerkantho

বুধবার । ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩ জুন ২০২০। ১০ শাওয়াল ১৪৪১

'ভাইরাস মন্দির-মসজিদ চেনে না; চেনে শুধু লাশ আর লাশ'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'ভাইরাস মন্দির-মসজিদ চেনে না; চেনে শুধু লাশ আর লাশ'

বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের ২২ তম ব্যাচের কর্মকর্তা দুর্নীতি দমন কমিশনের পরিচালক (উপসচিব) জালাল সাইফুর রহমান আজ সকাল ৭:৩০টায় মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি করোনা ভাইরাসে (Covid 19) আক্রান্ত হয়ে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

তিনি খুব সৎ, মেধাবী এবং অত্যন্ত ভাল একজন মানুষ ছিলেন। তিনি অত্যন্ত পরহেজগার ছিলেন। নামাজ পড়তেন মসজিদের জামাতে। আল্লাহ তাঁর জান্নাত নসীব করুন। তাঁর স্ত্রী ও সন্তানকে আল্লাহ হেফাজত ও রক্ষা করুন।

আমারদের গ্রামের মসজিদগুলো এখন ঠাসা মুসল্লী দিয়ে। আগে যেখানে এক কাতার লোক হত না। গ্রামের প্রায় সবাই সুদ খায় বা সুদের উপর টাকা খাটায়। ভিক্ষে করে দিনে তিনশত টাকা পেলেও তার একশত টাকা সুদের উপর খাটাবে। সব গ্রামের অবস্থা তাই।কিন্তু করোনার এই ভয়াবহ অবস্থাতেও সুদ খাওয়া ছাড়েনি কেউ অথচ মসজিদ ভরে যায় প্রতি ওয়াক্তে।

ভাইরাস কোন ধর্ম চেনে না, চেনে না এলাকা, অবস্থান। চায়ের আড্ডা, খেলার মাঠ, বাস, লঞ্চ কিংবা ট্রেন। চেনে না মসজিদ মন্দির গীর্জা, মঠ বা প্যাগোডা। ৫, ৯, ১৮, আজ ৩৫। ভাইরাস চেনে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে যাওয়া সংখ্যা। ভাইরাস পছন্দ করে শুধু লাশ আর লাশ।

সুদখোর মহাজন, বাড়িতে ওয়াজ মাহফিল করে সুদের বিরুদ্ধে। ঘুষখোর নামাজে যায় ঘুষদাতাকে চেয়ারে বসিয়ে। হাজার হাজার মানুষের ঘুমের শান্তি নষ্ট করে সারা রাত মাইক বাজিয়ে ওয়াজ চলে ইসলাম শান্তির ধর্ম বয়ান করে। বাবা মা সন্তানের বিয়েতে দোয়া চায় হাজার হাজার ওয়াটের স্পীকার আর ব্যান্ড পার্টির নাচ গান করিয়ে পুরো এলাকার মানুষের শান্তি বিনষ্ট করে।

এই ইসলাম চাননি আল্লাহপাক।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা