kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

অনর্থের লেনদেন

বিকাশ ছাড়াও মোবাইলে লেনদেনের জন্য আছে অনেক অ্যাপ। সেগুলো দিয়ে মোবাইল রিচার্জ ছাড়াও নানা ধরনের লেনদেন করা যায়। খোঁজ-খবর নিয়ে জানাচ্ছেন তুসিন আহমেদ

৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



অনর্থের লেনদেন

মডেল: ইভা, ছবি: মোহাম্মদ আসাদ

ডিজিটাল এই সময়ের কাগজের নোটের বদলে ই-ওয়ালেট বেশ জনপ্রিয় হচ্ছে। উন্নত বিশ্বে সহজেই ই-ওয়ালেটের মাধ্যমে যেকোনো আর্থিক লেনদেন করা যায়। বাংলাদেশেও ধীরে ধীরে এই খাতটি জনপ্রিয় হচ্ছে। লেনদেন করা যাচ্ছে নগদবিহীন।

 

নগদ

এটি বাংলাদেশ ডাক বিভাগের ডিজিটাল আর্থিক সেবা। এটি গ্রাহকদের দৈনন্দিন ডিজিটাল লেনদেন সুবিধা দিয়ে থাকে। নগদ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে গ্রাহকরা ক্যাশইন, ক্যাশ আউট, সেন্ড মানি বা অর্থ প্রেরণ এবং মোবাইল অ্যাকাউন্ট রিচার্জ সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। অ্যাপ ছাড়াও ইউএসএসডির ব্যবহার করা যাবে নগদের মাধ্যমে।

এলাকার নিকটস্থ পোস্ট অফিসে গিয়ে আপনি নগদ অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। বাংলাদেশের প্রতিটি

বিভাগ, জেলা, থানা, গ্রাম, ইউনিয়ন পর্যায়ে পোস্ট অফিস রয়েছে। ‘নগদ’-এর অ্যাকাউন্ট খোলা বিকাশের মতোই সহজ। দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও দুই কপি ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি নিয়ে নিকটস্থ পোস্ট অফিস বা অনুমোদিত নগদ এজেন্ট দোকানে গিয়ে অ্যাকাউন্ট করা যাবে।

অ্যানড্রয়েড : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.konasl.nagad

 

আইপে

উন্নত বিশ্বে ই-ওয়ালেট বিষয়টি অনেক জনপ্রিয়। কোনো পণ্য কিনতে বা সহজেই কাউকে অর্থ পাঠাতে ই-ওয়ালেটকে বেছে নেওয়া হয়, যেখানে নগদ অর্থের প্রয়োজন নেই। আবার চাইলেই ই-ওয়ালেট ব্যবহার করে নগদ টাকায় রূপান্তর করা যায়।

আইপেকে ডিজিটাল ওয়ালেটও বলা যায়। বর্তমানে বিভিন্ন ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো, রিকোয়েস্ট মানি, ইউটিলিটি বিল এবং টপআপ করা যায়। আইপের মাধ্যমে কোনো ব্যাংকে টাকা পাঠাতে ১.৫ শতাংশ চার্জ কাটে। এ ছাড়া সেন্ড মানি করতে কোনো চার্জ কাটে না।

ব্যবহারকারীকে আইপে অ্যাপটি ডাউনলোড করে সাইনআপ করে নিতে হবে। তারপর ব্যাংকের মাধ্যমে অর্থ আইপে পাঠিয়ে লেনদেন করা যাবে।

৪.১ রেটিং প্রাপ্ত অ্যাপটির সাইজ ১৭ মেগাবাইট। ডাউনলোড এক লাখের বেশি।

অ্যানড্রয়েড : https://play.google.com/store/apps/details?id=bd.com.ipay.android

আইওএস : https://itunes.apple.com/us/app/ipay-by-ipay-systems-ltd./id1108322661?ls=1&mt=8

 

নেক্সাস পে

নেক্সাস পে হলো ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের আর্থিক লেনদেনের অ্যাপ। তবে অ্যাপ ইনস্টল এবং সচল করতে হলে আপনাকে ডিবিবিএলের অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে তা কিন্তু নয়। এমনকি রকেট অ্যাকাউন্ট থাকারও দরকার নেই। অনেকটা আইপের মতোই শুধু অ্যাকাউন্ট খুলে ব্যবহার করা যাবে এই সেবা।

এর মাধ্যমে আপনি টাকা প্রেরণ ও গ্রহণ করতে পারবেন। মাসে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ২এফএ টোকেন অর্থাৎ হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার টোকেন ছাড়াই পাঠাতে পারবেন। তালিকাভুক্ত শপ এবং অনলাইনে কেনাকাটা করতে পারবেন। দিতে পারবেন ইউটিলিটি বিলও।  সংযুক্ত কার্ডগুলোর ব্যালান্স চেক এবং জমা-খরচের বিবরণী দেখতে পারবেন। মোবাইল ফোনের ব্যালান্স টপ আপ করতে পারবেন। অন্য কাউকে টাকা পাঠানোর জন্য অনুরোধ পাঠাতে পারবেন। এটি দিয়ে রকেট অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন। ১০ হাজারের বেশি শপিং পয়েন্টে নেক্সাস পে কার্ড দিয়ে পেমেন্ট করা যাবে। ৪.২ রেটিং প্রাপ্ত অ্যাপটি পাঁচ লাখের বেশি ডাউনলোড হয়েছে গুগল প্লেস্টোরে।

অ্যানড্রয়েড : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.dbbl.nexus.pay&hl=en

আইওএস : https://itunes.apple.com/us/ app/nexuspay/id1309057095?mt=8

 

শিওরক্যাশ

শিউরক্যাশের মাধ্যমে অর্থ উত্তোলন ও অর্থ জমাও করা যায়। চাইলে মুহূর্তের মধ্যে টাকা পাঠানো যাবে। এই সেবার মাধ্যমে মোবাইল রির্চাজ, ইউটিলিটি বিল এবং অনলাইনে লেনদেন করা যায়।

এ ছাড়া বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভর্তি বা পরীক্ষার বিল দেওয়া সম্ভব শিওরক্যাশের মাধ্যমে। ইডেন মহিলা কলেজ, ঢাকা কলেজ, বুয়েট, মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়, শেরেবাংলা মেডিক্যালসহ অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিল দেওয়া সম্ভব শিওরক্যাশের মাধ্যমে।

চাইলে ইউএসএসডি কোড এবং অ্যাপ, দুভাবেই শিওরক্যাশ ব্যবহার করা যায়।

অ্যানড্রয়েড ও আইওএস সংস্করণ ব্যবহার করা যাবে অ্যাপটিতে। অ্যাপটির ইউজার ইন্টারফেস সুন্দর। অ্যাপটি চালু করার পরে ওয়ালেট আইডি ও পিন দিয়ে লগইন করতে হবে। এতে অ্যাকাউন্ট খুলতে নিকটস্থ এজেন্টের কাছে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে যেতে হবে। তারপর অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে। অ্যাপটির পেমেন্ট অপশনে দেখে নেওয়া যাবে আর্থিক লেনদেনের হিস্টোরি। গুগল প্লেস্টোরে অ্যাপটি এক লাখের বেশি ডাউনলোড হয়েছে।

অ্যানড্রয়েড : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.progoti.surecash&hl=en

আইওএস : https://itunes.apple.com/us/app/surecash/id1223865145?mt=8

 

টপআপ

ফোনে রিচার্জ করতে এখন আর রাস্তার মোড়ে থাকা মোবাইল রিচার্জের দোকানে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে এখন ঘরে বসেই মোবাইল রিচার্জ করা যায়। সহজে রিচার্জ করার তেমনি একটি অ্যাপ হলো ‘টপআপ’। দেশি উদ্যোক্তাদের তৈরি অ্যাপটি এরই মধ্যে ব্যবহার করছে লাখো মানুষ।

শিগগিরই বাস, ট্রেন ও সিনেমার টিকিট কাটার সুবিধা এবং বিভিন্ন বিল প্রদানের সেবা যুক্ত করা হবে।

প্রথমে ফোন নম্বর দিয়ে অ্যাপটিতে নিবন্ধন করতে হবে।

অ্যাপটিতে নানা অফারও পাওয়া যাবে। বর্তমানে চলছে ১০ শতাংশ ক্যাশব্যাক অফার। অ্যাপের ‘Promotion’ অপশনে গিয়ে আরো কিছু অফার সম্পর্কে জানা যাবে। এ জন্য ‘EBL10N’ কার্ডটি ব্যবহার করতে হবে।

অ্যাপটির সাহায্যে মোবাইলে টাকা রিচার্জ করতে হলে প্রথমে পয়েন্ট যুক্ত করতে হবে। যেকোনো ব্যাংকের ডেবিট অথবা ক্রেডিট কার্ড দিয়ে এই সেবা গ্রাহকরা পেতে পারেন। এতে মোবাইল পেমেন্ট দিয়েও সেবা গ্রহণ করা যাবে। প্রতি পয়েন্টের মূল্য এক টাকা।

অ্যাপের হিস্টোরি অপশনে ব্যবহারকারীরা রিচার্জের হিস্টোরি দেখতে পারবেন। অ্যাপটির বাঁ পাশে মেন্যু অপশনে থাকা ‘Notification’-এ গিয়েও নানা ঘোষণা সম্পর্কে জানা যাবে। রেটিং ৩.৯।

অ্যানড্রয়েড : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.mobiletopup.bd&hl=en

আইওএস : https://itunes.apple.com/us/app/topup-bd-mobile-recharge-app/id1445530088

 

ইউপে

ইউপে হলো ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেডের একটি অনলাইনভিত্তিক আর্থিক সেবার প্ল্যাটফর্ম। মোবাইল ফোন ব্যবহার করে যেকোনো সময় যেকোনো স্থান থেকে ডিজিটাল লেনদেন সম্ভব। ইউপের এই ঠিকানায় https://www.upaybd.com/login গিয়ে যেকোনো ব্যবহারকারী নিবন্ধন করতে পারবেন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দিয়ে। অন্য সব অনলাইন অর্থ লেনদেনের মতো এই প্ল্যাটফর্মটিতে অর্থ উত্তোলন, মোবাইল রিচার্জ অনলাইনে কেনাকাটা কাজগুলো করা যায়।

গেল বছর ইউপে তৈরি করেছে ভার্চুয়াল ব্যাংকনোট। কম্পিউটারে তৈরি নোট, যা যেকোনো মূল্যের এবং সংখ্যার হতে পারে (যেমন—১১.৫০ টাকা, ৯৬.৫০ টাকা, ২৩৪৪৫.৫০ টাকা)। তাই যখন ইউপে অ্যাপে লেনদেন করা হবে, তখন চাহিদামতো কিউআর কোডটি সঠিক পরিমাণের ভার্চুয়াল নোটে রূপান্তরিত হবে।

যেহেতু বেশির ভাগ মানুষ এখনো মোবাইল ব্যাংকিংয়ে অভ্যস্ত নন, তাই ইউপে অ্যাপ-এ লেনদেনের সময় কিউআর কোডের পরিবর্তে চাহিদা অনুযায়ী ভার্চুয়াল নোট দৃশ্যমান হবে। খুব সহজেই বাংলাদেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষজন ব্যাংকিং সুবিধা পাবেন এবং ক্রমাগত নিরাপদ ও সুবিধাজনক আধুনিক মোবাইল ব্যাংকিংয়ের প্রতি উৎসাহিত হবেন বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

অ্যানড্রয়েড : https://play.google.com/store/apps/details?id=bd.com.ucb.upay&hl=en

আইওএস : https://itunes. apple.com/us/app/ucb-upay/id1299619911?mt=8

 

রকেট

রকেট হলো ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের একটি মোবাইল আর্থিক লেনদেনের সেবা। অন্য সব সেবার মতোই এতে অর্থ লেনদেন করা যাবে, এজেন্ট পয়েন্ট থেকে অর্থ উত্তোলন করা যাবে, অনলাইনে লেনদেন ও কেনাকাটা করা যাবে।

অ্যানড্রয়েড : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.dbbl.mbs.apps.main&hl=en

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা