kalerkantho

সোমবার । ২৪ জুন ২০১৯। ১০ আষাঢ় ১৪২৬। ২০ শাওয়াল ১৪৪০

৬০০ বছরের পুরনো লিপির কি-বোর্ড

ত্রয়োদশ-চতুর্দশ শতাব্দীতে উদ্ভব সিলেটি নাগরী বা নাগরী লিপিতে স্মার্টফোনে লেখালেখির জন্য আছে ‘সিলটি নাগরী কি-বোর্ড’। এটি তৈরি করেছে দেশি প্রতিষ্ঠান ক্যাপসুল স্টুডিও। জানাচ্ছেন আশরাফুল ইসলাম

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



৬০০ বছরের পুরনো লিপির কি-বোর্ড

বয়স ছয় শ বছর

চতুর্দশ শতকের প্রথম দশকে আরবি, কাইথি, বাংলা ও দেব নাগরী লিপির সংমিশ্রণে সিলেটি নাগরী লিপির উদ্ভব ঘটে। আরবি ও ফারসি ভাষার সঙ্গে সিলেটের স্থানীয় ভাষার সংমিশ্রণে যে মুসলমানি বাংলা ভাষার প্রচলন হয়, তার বাহন হিসেবে এই লিপি ব্যবহৃত হতো। সিলেটের সে সময়কার মুসলমান লেখকরা বাংলার পরিবর্তে এই লিপিতেই ধর্মীয় বিষয়গুলো চর্চায় স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতেন। জানা যায়, হযরত শাহ জালাল (রহ.)-এর সমসাময়িক মুসলমান ধর্মপ্রচারকরাও নাকি এই লিপিতে ধর্মমত লিখতেন। অধ্যাপক আহমদ হাসান দানীর মতে, সিলেটে মুসলমান শাসনের শুরু থেকেই সিলেটি নাগরীর ব্যবহার চলে আসছে এবং আফগান মুদ্রায় এ লিপিমালার কয়েকটি লিপির ব্যবহার আছে। সিলেটি নাগরী ‘জালালাবাদী নাগরী’, ‘মুসলমানি নাগরী’ বা ‘ফুল নাগরী’ নামেও পরিচিত।

একসময় প্রধানত সিলেট অঞ্চলে এটি প্রচলিত ছিল। তবে সিলেটের বাইরে কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনা এবং আসামের কাছার ও করিমগঞ্জেও এর ব্যবহার হতো।

 

দুই তরুণের উদ্যোগ

দুনিয়ার অসংখ্য লিপির মতো নাগরী লিপিও কালের গর্ভে হারিয়ে যেতে বসেছে। আর এই হারিয়ে যাওয়া লিপিকে তুলে ধরতে নারগী লিপি কি-বোর্ড তৈরি করেছেন সিলেটের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৩১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী সাব্বির আহমদ শাওন ও নুরুল ইসলাম। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে এই কি-বোর্ডটি প্লেস্টোরে উন্মোচন করা হয়। অ্যাপটি এ পর্যন্ত আড়াই হাজারেরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে।

অ্যাপটি তৈরির মূল উদ্দেশ্য সম্পর্কে সাব্বির আহমদ শাওন বলেন, ‘নাগরী ভাষা এখন আর মানুষের মুখে স্থান পায় না। কিন্তু স্বতন্ত্র ভাষা নাগরীর সঙ্গে সিলেটের যে গর্ব আর ঐতিহ্যের বন্ধন, সেটি আড়াল হওয়ার নয়। সেই ঐতিহ্যের কথা মাথায় রেখেই নাগরী বর্ণমালা দিয়ে কি-বোর্ডটি তৈরি করা হয়েছে।’

 

বর্তমানে কি-বোর্ডটির ইংরেজি, নাগরী এবং বাংলা টু নাগরী লে-আউট রয়েছে। চাইলে সহজেই সোয়াইপ করে ইংরেজি ও নাগরী লে-আউটও নির্বাচন করা যায়। অ্যাপটিতে বর্তমানে শব্দের অটোসাজেশন প্রদর্শিত হয় না। সেটা নিয়ে কাজ চলছে, শিগগিরই নতুন আপডেটে তা সংযুক্ত করা হবে। ভবিষ্যতে বাংলা ও ফোনেটিক লে-আউটও যুক্ত করা হবে এতে।

 

ব্যবহারবিধি

প্রথমে এই ঠিকানা http://bit.ly/2SE8NLu থেকে অ্যানড্রয়েড ব্যবহারকারীরা অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারবেন। সাইজ মাত্র ২.২ মেগাবাইটের অ্যাপটির রেটিং ৪.৯।

কি-বোর্ডটি ইনস্টল করার পর ফোনের ‘Sittings’ থেকে ‘language & input’ অপশনে যেতে হবে। সেখান থেকে ‘default keyboard’ অপশনে গিয়ে ‘Syloti Nagri Keyboard’ নির্বাচন করতে হবে।

তাহলে যখন ফোনে কোনো টেক্সট লিখবেন, তখন অ্যাপটি চালু হবে কি-বোর্ড হিসেবে। তবে কি-বোর্ডের স্পেস বাটন সোয়াইপ করে ডানে-বাঁয়ে গিয়ে কি-বোর্ডের লে-আউট পরিবর্তন করা যাবে।

মন্তব্য