kalerkantho

সোমবার । ২০ মে ২০১৯। ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৪ রমজান ১৪৪০

ঐক্য : উদ্যোক্তাদের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম

ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা বা এসএমই পণ্যের অনলাইন দোকান হিসেবে সম্প্রতি যাত্রা শুরু করেছে ঐক্য ডটকম ডটবিডি (https://www.oikko.com.bd/)। স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ঐক্য ফাউন্ডেশনের একটি উদ্যোগ এই অনলাইন দোকান। বিস্তারিত ইমরান হোসেন মিলনের কাছে

৩০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



ঐক্য : উদ্যোক্তাদের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম

ছবি : মোহাম্মদ আসাদ

এটাকে সরাসরি ই-কমার্স না বলে দোকান বলছেন ঐক্য ডটকম ডটবিডির উদ্যোক্তারা। কারণ এখানে যে কেউ চাইলেই পণ্য বিক্রি করতে পারবেন না। এখানে পণ্য বিক্রির জন্য তাঁকে অবশ্যই উদ্যোক্তা হতে হবে। তাই দেখতে অনেকটাই ই-কমার্স বা অনলাইন মার্কেট প্লেসের মতো হলেও আসলে এটি অনলাইন পণ্যের দোকান।

 

কেন এমন উদ্যোগ

ঐক্য ডটকম ডটবিডির একজন উদ্যোক্তা সোশ্যাল এন্টারপ্রাইজ অ্যান্ড এসএমই ফিন্যানশিয়াল এনগেজমেন্ট পরিচালক তানভীর আহমেদ তানিম বলেন, “এটার শুরু বলতে গেলে চ্যানেল আইয়ের উদ্যোক্তা খোঁজার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে, যেটা আমরা শুরু করি ২০১৪ সালে। সে সময় আমি এবং চ্যানেল আইয়ের অপু মাহফুজ বিভিন্ন সময় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গেছি। সেখানকার ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তাঁদের সফলতার গল্প তুলে ধরেছি। তাঁরা তখন একটাই আকুতি জানিয়েছেন, তাঁদের পণ্যগুলো যেন দেশ-বিদেশের গ্রাহকদের কাছে কম দামে পৌঁছানোর একটা ব্যবস্থা হয়। এরপর আমরা সিদ্ধান্ত নিই এমন কিছু করার, যাতে সারা দেশে ছড়িয়ে থাকা এমন উদ্যোক্তারা একটা প্ল্যাটফর্ম পান এবং নিজেদের পণ্যগুলো একটি জায়গায় বিক্রি করতে পারেন। এরপর ঐক্য ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ‘ঐক্য ডটকম ডটবিডি’ প্ল্যাটফর্মের সূচনা করা হয়।”

 

যেভাবে কাজ করে ঐক্য

ঐক্য ডটকমে কোনো পণ্য বিক্রি করতে হলে উদ্যোক্তাদের ঐক্য ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে একটি নিবন্ধন করতে হবে। এরপর উদ্যোক্তা তাঁদের যে পণ্যগুলো বিক্রি করতে চান, সেগুলো নিয়ে এলে তাঁর ফটোশুট করে ঐক্য ফাউন্ডেশন। এরপর উদ্যোক্তাদের পণ্যগুলো বিক্রির জন্য উদ্যোক্তাদের ঠিক করে দেওয়া দাম ট্যাগ করে সাইটে দেওয়া হয়। আর যখন কোনো পণ্য অর্ডার করা হবে সাইট থেকে, সেটা সরাসরি উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে সংগ্রহ করে গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কাজ করবে ঐক্য।

 

সব পণ্যই দেশি

ঐক্য ডটকম ডটবিডিতে যেসব পণ্য পাওয়া যাচ্ছে তার সবই দেশি; এমনকি ভবিষ্যতে যেসব পণ্য বিক্রি হবে তার সবই দেশি পণ্যই হবে। তানভীর আহমেদ বলেন, ‘আমরা এমনও উদ্যোক্তা পেয়েছি, যাঁরা এমন সব পণ্য তৈরি করেন, যা ঢাকার অনেক ই-কমার্স সাইট ও শোরুমে বিক্রি হয় বিদেশি পণ্য বলে।’

উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘এক গ্রামের উদ্যোক্তা বিভিন্ন ধরনের পুতুলসহ শিশুদের খেলনা তৈরি করেন। সেসব খেলনা অনেকেই তাঁর কাছ থেকে কিনে নিয়ে চীনের তৈরি বলে বিক্রি করেন।’

এমন উদ্যোক্তাদের বাঁচাতেই ঐক্যতে দেশে তৈরি সব পণ্যই বিক্রি করা হবে বলে জানান তিনি। এসব শুধু দেশেই নয়, বিদেশ থেকেও যে কেউ কিনতে পারবেন।

 

নেই কোনো মধ্যস্বত্বভোগী

ঐক্যর চালু করা অনলাইন দোকানে কোনো ধরনের মধ্যস্বত্বভোগীর দৌরাত্ম্য থাকছে না। ফলে একজন উদ্যোক্তা সরাসরি নিজের পণ্যটি গ্রাহকের হাতে তুলে দিতে পারবেন। এ জন্য পণ্যের দামও কম হবে। ঐক্যতে নিবন্ধন করা এমন এক উদ্যোক্তা জানান, তিনি বিয়ের শাড়ি ডিজাইন ও তৈরি করেন। দেখা যায়, তিনি যে দামে শাড়িটি বিক্রি করেন, সেটি তিন থেকে চার হাত ঘুরে দোকানে বিক্রি হয় চার থেকে ছয় গুণ দামে। ফলে একদিকে যেমন গ্রাহক ঠকছেন, তেমনি মুনাফা থেকে উদ্যোক্তারাও বঞ্চিত হচ্ছেন। ঐক্যতে উদ্যোক্তারা তাঁদের ন্যায্য মূল্যে পণ্য বিক্রি করতে পারবেন এবং মধ্যস্বত্বভোগী না থাকায় পণ্যের দামও খুব কম থাকছে।

 

ব্যবসা করা উদ্দেশ্য নয়

ঐক্য ফাউন্ডেশনের স্লোগান হচ্ছে—ঐক্য উন্নয়নের জন্য। প্রতিষ্ঠানটি দীর্ঘদিন ধরেই কাজ করছে বিভিন্ন ধরনের উদ্যোক্তার উন্নয়নে। আর নতুন করে ঐক্য ডটকম ডটবিডির মাধ্যমে যে অনলাইন কেনাকাটার সুযোগ সৃষ্টি করল গ্রাহকদের জন্য, সেখানে কোনোভাবেই নিজেরা ব্যবসা করবে না বলে জানায় ঐক্য। এর মূল লক্ষ্য দেশব্যাপী ছড়িয়ে থাকা ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের কাছে ব্যবসার পরিবেশ তৈরি করে দেওয়া। তানভীর আহমেদ বলেন, ‘আমরা চাই দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা তাদের পণ্যের মাধ্যমে দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে যাক।’

 

৪৯১ উপজেলায় ঐক্য

ঐক্য ডটকম ডটবিডিকে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিয়ে কাজ করতে চায় ঐক্য ফাউন্ডেশন। এ জন্য প্রাথমিকভাবে দেশের ৪৯১ উপজেলায় ঐক্য তাদের অনলাইন স্টোর চালুর কাজ শুরু করেছে। এরই মধ্যে কয়েকটি উপজেলায় চালু করা হয়েছে বলে জানান তানভীর আহমেদ। অল্পদিনের মধ্যে অন্যান্য স্থানেও স্টোরগুলো চালু হবে। প্রতিষ্ঠানটি এসব স্টোরের মাধ্যমে সারা দেশে তাদের সেবা সহজেই পৌঁছে দিতে চায়। এসব স্টোরে অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনেও পণ্য প্রদর্শন করা হবে, যাতে পণ্যের মান সম্পর্কে মানুষ নিশ্চিত হতে পারে। একই সঙ্গে এই স্টোর খোলার আরেকটি উদ্দেশ্য হচ্ছে, ঐক্যর মাধ্যমে দেশের এক প্রান্তের উদ্যোক্তারা অন্য প্রান্তে সহজেই নিজেদের পণ্য পৌঁছাতে পারেন।

 

কী আছে ওয়েবসাইটে

ঐক্য ডটকম ডটবিডির ওয়েবসাইটে গেলে দেখা যায়, এটি আর দশটি ই-কমার্স সাইটের মতোই পণ্য প্রদর্শন করছে। সেখানে রয়েছে হটলাইন নাম্বার। বিভিন্ন বিভাগ অনুযায়ী পণ্য সাজানো হয়েছে। তবে এখানে একটি ভিন্নতা রয়েছে অন্য সাইটগুলোর চেয়ে। সাইটে মেন্যু বারের সর্বডানে রয়েছে উদ্যোক্তাদের তালিকা। কারা এখানে নিবন্ধন করে নিজেদের পণ্য বিক্রি করছেন তাঁদের নাম রয়েছে সেই তালিকায়। তালিকায় এখন পর্যন্ত ৯০ জন উদ্যোক্তা যুক্ত হয়েছেন। প্রতিদিনই নতুন করে আরো যুক্ত হচ্ছেন বলে জানায় ঐক্য।

 

প্রশিক্ষণও পাবেন উদ্যোক্তারা

উদ্যোক্তাদের দক্ষতা আরো বাড়াতে অনলাইনে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করবে ঐক্য। এসএমই ডিজিটাল ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে এই খাতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে প্রতিষ্ঠানটি। সব প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে ডিজিটাল মাধ্যমে। অনেক ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ভিডিও ধারণ করে সেগুলো অনলাইনে আপলোড করা হবে। সেখান থেকে ভিডিওগুলো সংগ্রহ করে উদ্যোক্তারা নিজেরাই প্রশিক্ষিত হতে পারবেন। তবে উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম কতটা সফল হলো সেটার জন্য তাঁদের ঢাকায় এসে পরীক্ষাও দিতে হবে।

অবশ্য এমন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম খুব সহজ হবে বলেও জানান তানভীর আহমেদ। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আমরা অনলাইনে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি। তবে এর প্রক্রিয়াগুলো খুবই সহজ হবে। অনেক উদ্যোক্তা আছেন, যারা স্বল্পশিক্ষিত, কিন্তু তাঁরা দারুণ সব কাজ করেন। তাঁদের কথা মাথায় রেখেই কাজ করেছি। এসব প্রশিক্ষণ নিয়ে যেন আরো অনেক উদ্যোক্তা গড়ে উঠতে পারেন, সে জন্যই একে সহজ করার ওপর আমরা জোর দিয়েছি।

মন্তব্য