kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে আমির-ওয়াহাব

২১ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিবর্ণ বোলিং। ৩৫৮ রান করেও হারতে হয়েছে অসহায়ভাবে। পাকিস্তান বিধ্বস্ত ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের সিরিজেও। আত্মসমর্পণ ০-৪ ব্যবধানে। বিশ্বকাপ দলে তাই তিন তিনটি পরিবর্তন এনেছেন নির্বাচকরা। ফেরানো হয়েছে অভিজ্ঞ মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত সিরিজ খেলা ব্যাটসম্যান আসিফ আলীও জায়গা করে নিয়েছেন ১৫ জনের চূড়ান্ত দলে। তাঁদের জায়গা দিতে কপাল পুড়েছে জুনাইদ খান, আবিদ আলী আর ফাহিম আশরাফের। শুরুতে দলে থাকলেও বাদ পড়েছেন তিনজন।

পাকিস্তানের দল ঘোষণার পর থেকে মোহাম্মদ আমিরকে ফেরানোর দাবি জানিয়ে আসছিলেন ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনুসরা। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের সিরিজটা শেষ সুযোগ ছিল আমিরের। চিকেন পক্সের কারণে চার ম্যাচের কোনোটিতে মাঠে নামা হয়নি তাঁর। তবে অন্য বোলাররা নাস্তানাবুদ হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ফেরানো হলো আমিরকে। আর ২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপ দলে থাকা ওয়াহাব রিয়াজকে নেওয়া হয়েছে অভিজ্ঞতার কথা ভেবে। যদিও সেই দুটি বিশ্বকাপ চোটের জন্য খেলা হয়নি ওয়াহাবের। ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির পর কোনো ওয়ানডে না খেলা ওয়াহাব ছিলেন না প্রাথমিক ২৩ জনের দলেও। তাঁকে ফিরিয়ে চমকই দেখিয়েছেন নির্বাচকরা।

প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল-হক দলে তিন বদলের ব্যাখ্যা দিলেন এভাবে, ‘আমিরকে নিয়েছি কারণ অন্য বোলারদের বলের গতি ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে অকার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। আমির ওর গতি, লাইন, লেংথ দিয়ে সেখানে ভালো করবে বলে আমাদের বিশ্বাস। এই সময়ে ইংল্যান্ডের উইকেটগুলোর যা অবস্থা তাতে ওয়াহাব আদর্শ বোলার। আসিফ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে দারুণ ব্যাট করে জায়গা করে নিয়েছে বিশ্বকাপের মূল দলে।’

এদিকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে ৫৪ রানে হেরেছে পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের ৩৫১ রানের জবাবে সরফরাজ আহমেদের দল গুটিয়ে যায় ২৯৭-এ। সরফরাজ আহমেদ ৮০ বলে ৯৭ ও বাবর আজম করেছিলেন ৮৩ বলে ৮০। ক্রিস ওকস ৫৪ রানে ৫ উইকেট নিয়ে হয়েছেন ম্যাচসেরা। ০-৪-এ সিরিজ হারের পরই মোহাম্মদ আমিরকে বিশ্বকাপ দলে স্বাগত জানিয়েছিলেন সরফরাজ আহমেদ, ‘বিশ্বকাপের জন্য মোটেও ভালো প্রস্তুতি হলো না। ব্যাটসম্যানরা রান পেলেও হতাশ করেছে বোলিং ও ফিল্ডিং। শাদাব ও আমির আশা করছি দ্রুত দলে যোগ দেবে, ওদের স্বাগত জানাই।’ এএফপি

 

চূড়ান্ত স্কোয়াড

সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক), বাবর আজম, আসিফ আলী, ফকর জামান, হারিস সোহেল, হাসান আলী, ইমাদ ওয়াসিম, ইমাম-উল-হক, মোহাম্মদ আমির, মোহাম্মদ হাফিজ, মোহম্মদ হাসনাইন, শাদাব খান, শাহিন শাহ আফ্রিদি, ওয়াহাব রিয়াজ ও শোয়েব মালিক।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা