kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

মুখোমুখি প্রতিদিন

নতুন কমিটির কাছে বেশি বেশি টুর্নামেন্ট চাই

হকি ফেডারেশনের নতুন কমিটি কার্যক্রম শুরু করেছে। ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট নিয়ে পরিকল্পনা সাজাচ্ছেন কর্মকর্তারা। খেলোয়াড়রা কী ভাবছেন, নতুন কমিটির কাছে তাঁদের প্রত্যাশা কী? জানতেই কালের কণ্ঠ স্পোর্টস মুখোমুখি হয়েছিল জাতীয় দলের খেলোয়াড় ফরহাদ আহমেদের

২০ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নতুন কমিটির কাছে বেশি বেশি টুর্নামেন্ট চাই

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : আপনাদের খেলা নেই অনেক দিন, সামনে কি আছে?

ফরহাদ আহমেদ : সামনে জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু হবে। খেলোয়াড়দের তালিকা হয়ে গেছে এরই মধ্যে। ১ জুলাই থাইল্যান্ড যাবে দল, তার আগে মালয়েশিয়া যাওয়া হতে পারে। তা ছাড়া সাঈদ (সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক সাঈদ) ভাইরা এএইচএফে যোগাযোগ করছে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি অথবা জুনিয়র এশিয়া কাপ বাংলাদেশে আয়োজন করা যায় কি না তা নিয়ে।

প্রশ্ন : নতুন কমিটির কাছে আর কী প্রত্যাশা?

ফরহাদ : আমরা বেশি বেশি টুর্নামেন্ট চাই। দেশেই খুব বেশি টুর্নামেন্ট হচ্ছে না। অনেক দিন ধরেই কোনো খেলা নেই। স্থানীয় টুর্নামেন্টগুলোতে খেলোয়াড়রা নিজেদের মেলে ধরার সুযোগ পায়। আর যত দ্রুত সম্ভব পরবর্তী প্রিমিয়ার লিগের তারিখ জানতে চাই আমরা। কারণ এর সঙ্গে আমাদের রুটি-রুজি জড়িত।

প্রশ্ন : এবার তো মনে হয় সব ক্লাবের অংশগ্রহণে জমজমাট একটা লিগ হবে?

ফরহাদ : আমরাও অনেক আশা করে আছি। সব ক্লাব না খেললে লিগের মান পড়ে যায়। দর্শকরাও ভালো হকি থেকে বঞ্চিত হয়। আমরা চাই সবাই একসঙ্গে হকিটাকে নিয়ে কাজ করুক। আমরা খেলোয়াড়রা মাঠে জান দিয়ে লড়ব।

প্রশ্ন : শুনলাম থাইল্যান্ডে ইনডোর হকি খেলবেন আপনারা, এই ফরম্যাট নিয়ে আপনার কী ধারণা।

ফরহাদ : এখন ইনডোর হকি তো বেশ জনপ্রিয়। ইউরোপের দলগুলো শীত মৌসুমের প্রায় পুরোটাই ইনডোরে খেলেছে। তা ছাড়া এশিয়ার থাইল্যান্ড, কাজাখস্তানে নিয়মিত ইনডোর হকি হয়। আমাদেরও সবার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলা উচিত। এই উদ্যোগটাকে তাই বেশ ভালোই মনে হচ্ছে। আমরা যদিও প্রথমবারের মতো এমন টুর্নামেন্ট খেলতে যাব, তবে ভালো অনুশীলন করতে পারলে নিশ্চয় আমরাও ভালো করব। আর শুধু ইনডোর হকি নয়, অন্যান্য আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টেও যেন আমরা আরো ভালো করতে পারি ফেডারেশন সে জন্যও নিশ্চয় কার্যক্রম হাতে নেবে।

মন্তব্য