kalerkantho

শেষ দিনে আজ শিরোপার নিষ্পত্তিও

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শেষ দিনে আজ শিরোপার নিষ্পত্তিও

ক্রীড়া প্রতিবেদক : জিতলেই লিগ চ্যাম্পিয়ন—এই সমীকরণ সামনে রেখে আবাহনী শেষ রাউন্ডে মাঠে নামবে আজ। বিকেএসপির এই ভেন্যুতে প্রায় অভিন্ন ধারণা নিয়েই তো পরশু লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে নেমেছিল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। তাতে সৌম্য সরকারের বিধ্বংসী সেঞ্চুরিতে ১০২ রানের বিস্ফোরক জয় পায় ঠিকই। সুপার লিগের টানা চার ম্যাচ জেতা উত্তুঙ্গ আত্মবিশ্বাসের দলটি আজ শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের বিপক্ষে ফেভারিট হিসেবেই নামছে।

অথচ সুপার লিগের শুরুতে ৪ পয়েন্টে এগিয়ে ছিল লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। শেখ জামালের কাছে হারে তাদের সর্বনাশের শুরু; পরশু আবাহনীর কাছে হারে ষোলোকলা পূর্ণ। আজকের শেষ রাউন্ডের আগে আবাহনী-রূপগঞ্জের পয়েন্ট সমান ২৪। নেট রান রেটে আবাহনী (০.৯০৫) ঢের এগিয়ে রূপগঞ্জের (০.৪২৫) চেয়ে। আজ জিতলেই তাই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে আবাহনী। প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে জিতে তখন হয়তো আবাহনীকে পয়েন্টে ছুঁতে পারবে রূপগঞ্জ; নেট রান রেটে কিছুতেই নয়।

আবাহনীর পরশুর জয়ে অফফর্মে থাকা সৌম্যর ৭১ বলে সেঞ্চুরিই হাইলাইট। রূপগঞ্জের মোহাম্মদ নাঈমের সেঞ্চুরিও দলের বড় হার ঠেকাতে পারেনি। আরেক খেলায় শেখ জামালের বিপক্ষে প্রাইম দোলেশ্বরের ৭ উইকেটের জয়ে ব্যাটিং তাণ্ডব সাইফ হাসানের। অপরাজিত ১৪৮ রানের ইনিংসে ১১ ছক্কা মেরে বাংলাদেশিদের হয়ে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটের এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড স্পর্শ করেছেন। আবাহনীর বিপক্ষে রূপগঞ্জের মমিনুল হক অবশ্য পাঁচ ক্যাচ নিয়ে লিস্ট ‘এ’-তে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ক্যাচের বিশ্বরেকর্ডই ছুঁয়েছেন। পরশু সুপার লিগের আরেক খেলায় প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে মোহামেডান।

আর রেলিগেশন লিগের শেষ ম্যাচে পরশু বিকেএসপিকে ৬ উইকেটে হারিয়ে অবনমন এড়িয়েছে ব্রাদার্স। ফজলে মাহমুদের সেঞ্চুরিতে পাওয়া এ জয়ে ব্রাদার্স-উত্তরা দুই দলেরই পয়েন্ট হয় সমান। তবে রানরেটে এগিয়ে রক্ষা ব্রাদার্সের। আগেই অবনমিত বিকেএসপির সঙ্গে উত্তরা স্পোর্টিং তাই আগামী বছর খেলবে প্রথম বিভাগে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

আবাহনী-লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ : আবাহনী : ৫০ ওভারে ৩৭৭/৭ (সৌম্য ১০৬, জহুরুল ৭৫, মিঠুন ৬৪*; তাসকিন ২/৫৭, শহীদ ২/৬২)।  রূপগঞ্জ : ৫০ ওভারে ২৭৫/৭ (নাঈম ১২৩, শহীদ ৫৩; মেহেদী ৩/৬৫)। ফল : আবাহনী ১০২ রানে জয়ী। ম্যাচসেরা : সৌম্য সরকার।

শেখ জামাল প্রাইম দোলেশ্বর : শেখ জামাল : ৪৯.৩ ওভারে ২৪৩ (তানভীর ৬৯; ফরহাদ রেজা ৩/৪৪, তাইবুর ৩/৫০)। প্রাইম দোলেশ্বর : ৩৮.৩ ওভারে ২৪৪/৩ (সাইফ ১৪৮*, ফরহাদ হোসেন ৭৮; তাইজুল ২/৪৪)। ফল : প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব ৭ উইকেটে জয়ী। ম্যাচসেরা : সাইফ হাসান।

মোহামেডান-প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব : প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব : ৪২.২ ওভারে ১৭৪ (কাপালি ৪৩; সাকলাইন ৪/৪০, সোহাগ ৩/৩৮)। মোহামেডান : ৩৫ ওভারে ১৭৫/৩ (মজিদ ৫৪, রকিবুল ৫২*; নাহিদুল ১/২৭)। ফল : মোহামেডান ৭ উইকেটে জয়ী। ম্যাচসেরা  : সাকলাইন সজীব।

মন্তব্য