kalerkantho

সোমবার । ২০ মে ২০১৯। ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৪ রমজান ১৪৪০

ফুটবল যেমন ‘নিষ্ঠুর’ তেমনি ‘অবিশ্বাস্য’

১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ম্যাচের ৯০ মিনিটে বলটা জালে পাঠিয়েই রহিম স্টার্লিং দিয়েছেন ভোঁ-দৌড়। ডাগ আউটে পেপ গার্দিওলা তখন কার কোলে চড়বেন, কাকে জড়িয়ে ধরবেন বুঝতে না পেরে ছোটাছুটি করছেন দিগ্বিদিক। রোমাঞ্চে ভরা এক ম্যাচ শেষে সেমির টিকিট পেয়ে যাওয়ার আনন্দ তখন পুরো ইত্তিহাদে। মুহূর্তে এমন বাঁধভাঙা আনন্দ বিষাদে নীল হতে পারে কী করে পরশু রাতে তা-ই দেখল ফুটবলবিশ্ব। গার্দিওলা ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে তা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ‘নিষ্ঠুর’ ছাড়া যথাযথ আর কোনো শব্দ খুঁজে পাননি।

এই টটেনহামকে এই মাঠে কালই আবার মুখোমুখি হতে হবে তাঁকে, লিগ শিরোপার লড়াইয়ে সেটিও ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ, কিন্তু পরশুর ম্যাচ শেষে তা নিয়ে আর কথা বলারই শক্তি অবশিষ্ট ছিল না স্প্যানিশ কোচের, ‘এ নিয়ে এখন আর কিছু ভাবতেও পারছি না। লম্বা ঘুম প্রয়োজন। এরপর প্রস্তুতির কথা।’ টটেনহাম কোচ মরিসিও পচেত্তিনোরও তখন সেই ম্যাচ নিয়ে ভাবার সময় ছিল না। এমন উদ্যাপনের মুহূর্ত আর কবে পাবেন তিনি। বলেছেন, ‘চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ চার, এটা স্বপ্ন পূরণের মতো ব্যাপার। আমার কোচিং ক্যারিয়ারের সেরা দিন। পরিশ্রম এবং ভাগ্যের ছোঁয়া ছাড়া এটা সম্ভব হতো না।’ প্রথম লেগে টটেনহামের বিপক্ষে একটি বিতর্কিত পেনাল্টি দেওয়া ভিএআর নিয়ে ক্ষোভ ঝাড়তে তিনি ছাড়েননি। সেই ভিডিওর সহায়তাই শেষ পর্যন্ত সৌভাগ্যের ছোঁয়া হয়ে এলো তাঁর কাছে। শেষ মুহূর্তে স্টার্লিংয়ের ওই গোল বাতিল নিয়ে এদিন বলছিলেন, ‘এটাই ফুটবল, অবিশ্বাস্য, এ জন্যই খেলাটাকে এত ভালোবাসি।’ বিবিসি

মন্তব্য