kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

মাশরাফির ৪০০

আবাহনীর জয়ে উজ্জ্বল বিশ্বকাপ তারকারা

১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আবাহনীর জয়ে উজ্জ্বল বিশ্বকাপ তারকারা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগেই (ডিপিএল) প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৪০০ উইকেটের মাইলফলকে পৌঁছান বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক। তবে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে মাশরাফি বিন মর্তুজার সেই মাইলফলকে পৌঁছানোর অপেক্ষা যেন ফুরোচ্ছিলই না। তিন ম্যাচে উইকেটশূন্য থাকার পর অবশেষে বিকেএসপিতে কাল মোহামেডানের ওপেনার ইরফান শুক্কুরকে বোল্ড করে অপেক্ষার অবসানের দিনে তাঁর পারফরম্যান্সও দারুণ উজ্জ্বল। ৪০ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন তিনি। বিশ্বকাপ দল ঘোষণার পরদিন ব্যাটে-বলে আলো ছড়িয়েছেন দলে থাকা আবাহনীর আরো কয়েকজনও।

৫৭ বলে ৫ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় অপরাজিত ৫৪ রানের ইনিংসে দলকে ৭ উইকেটে ৩০৪ রানে পৌঁছে দেওয়া আবাহনী অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন পরে নতুন বল হাতেও সফল। ৩৬ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। সৌম্য সরকার (১৭) আবারও বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হলেও ফিফটি করেছেন সাব্বির রহমান (৬৪) ও মোহাম্মদ মিঠুন (৫৬)। ৩৫ বলে ৪১ রান করা অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন বোলিংয়েও নিয়েছেন ১ উইকেট। বিশ্বকাপ তারকাদের ঝলমলে পারফরম্যান্সে উজ্জ্বল আবাহনী তাই সুপার লিগের ম্যাচে মোহামেডানের বিপক্ষে পেয়েছে ৪৫ রানের জয়। তাতে পয়েন্ট টেবিলের দুই নম্বরে এখন বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

একই দিনে ফতুল্লায় শেখ জামাল ধানমণ্ডির কাছে ৯ বল বাকি থাকতে ৪ উইকেটের হারে শীর্ষ দল লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের সঙ্গে আবাহনীর ব্যবধানও কমে এসেছে। রূপগঞ্জের বিপক্ষে জামালের জয়ের নায়ক আবারও ইলিয়াস সানী। চার ম্যাচের মধ্যে তৃতীয়বার ম্যাচসেরা এই বাঁহাতি স্পিনার প্রথমে করেছেন মিতব্যয়ী (১০-১-২৭-১)। যদিও রূপগঞ্জকে ১৭১ রানে গুটিয়ে দেওয়ায় ৩১ রানে ৪ উইকেট নিয়ে মূল ভূমিকা পেসার খালেদ আহমেদের। রান তাড়ায় ওপেন করতে নেমে ৫৮ রানের ইনিংসে জামালের জয়ের ছন্দটা ধরে দেন সেই ইলিয়াসই। দলের জয়ে অপরাজিত ৪৩ রানের ইনিংসে শেষ ছোঁয়াটা দেন লেগস্পিনিং অলরাউন্ডার তানভীর হায়দার। মিরপুরে দুই ‘প্রাইম’-এর লড়াইয়েও পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন অলরাউন্ডার ফরহাদ রেজা। তাঁর অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ৭ উইকেটে জিতেছে প্রাইম দোলেশ্বর। প্রথমে বল হাতে ২২ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ১৬৯ রানে গুটিয়ে দিয়েছেন প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে। পরে ৩৮ বল বাকি থাকতে জেতার সময়ও ফরহাদ বিধ্বংসী এক ইনিংস খেলে অপরাজিত। মাত্র ২৪ বলে ৬ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় করেছেন ৪১ রান। আবাহনীর জয়েও ব্যাটে-বলে সমান উজ্জ্বল মোসাদ্দেক হয়েছেন ম্যাচের সেরা।

মন্তব্য