kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

লা লিগা এখন আরো প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ

১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লা লিগা এখন আরো প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ

চোটের কারণে মাঠের বাইরে থেকে মিস করেছিলেন এল ক্লাসিকো। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে গ্যালারিতে বসেই দেখেছেন সতীর্থদের হেসেখেলে জিততে। আবার ফেরার ম্যাচে নিজে জোড়া গোল করেও ন্যু ক্যাম্পে ঠেকাতে পারেননি বার্সেলোনার হার। লিওনেল মেসি বুঝতে পারছেন, রিয়াল-বার্সেলোনার চিরায়ত গণ্ডির বাইরে ছড়িয়ে পড়ছে প্রতিদ্বন্দ্বিতা। স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কার বর্ষসেরার পুরস্কার নিতে এসে এটাই বললেন মেসি, সেই সঙ্গে জানিয়েছেন গোলের সংখ্যা নয়, গুরুত্বে তাঁর নজরটা বেশি।

২০১৭-১৮ মৌসুমে ৩৪ গোল করে সর্বাধিক গোলদাতার পুরস্কার পিচিচি ট্রফি জিতেছেন মেসি। মার্কার পরিচালক হুয়ান ইগনাসিও গালার্দোর হাত থেকে পুরস্কারটা নেওয়ার পর মেসি জানিয়েছেন, ‘লিগটা এখন সবচেয়ে বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ, কোনো কিছুই সহজ নয়, যেকোনো দলই যেকোনো দলকে হারাতে পারে এবং আমি আশা করব এ রকম যেন কিছুটা সময় আরো চলতে থাকে। আর আমি সব সময়ই গোলটা কত সুন্দর এর চেয়ে গোলটা ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেওয়াতে কতটা গুরুত্বপূর্ণ, সেদিকটাতেই বেশি মনোযোগী।’ শুধু সর্বোচ্চ গোলদাতার পিচিচি ট্রফিই নয়, বার্সেলোনার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়ালের সর্বকালের সেরা ফুটবলার আলফ্রেডো ডি স্টেফানোর নামে চালু করা সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারটাও উঠেছে মেসির হাতেই। চোটের পর প্রথম ম্যাচ খেলা মেসি জানালেন শুরুতে আড়ষ্ট থাকলেও খেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে ফিরে পেয়েছেন, ‘শুরুর দিকে কনুই নিয়ে খানিকটা দুশ্চিন্তায় ছিলাম, খুব বেশি লাগতে যাইনি কারো সঙ্গে। তবে আস্তে আস্তে খেলা যত এগিয়েছে, আমারও জড়তা কেটেছে।’

টানা তৃতীয়বারের মতো সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার পেলেন অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের ইয়ান ওবলাক। ৩৭ ম্যাচে মাত্র ২২ বার তিনি বল ঢুকতে দিয়েছেন জালে। স্প্যানিয়ার্ড স্ট্রাইকার তেলমো জারার নামে প্রচলিত সর্বোচ্চ গোল করা স্প্যানিশ ফুটবলারের জন্য পুরস্কার ‘জারা অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন ইয়াগো আসপাস। ভ্যালেন্সিয়াকে চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা পাইয়ে দেওয়ার জন্য মিগুয়েল মুনেজ ট্রফি পেয়েছেন ভ্যালেন্সিয়ার কোচ মার্সেলিনো আর সেরা রেফারি কার্লেস দেল চেরো গ্রান্দে। মার্কা

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা