kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

‘১০ হাজার নারীর সঙ্গে বিছানায় গেছি’- গর্ব করে বলছিলেন মেন্দি!‍

অনলাইন ডেস্ক   

১৮ আগস্ট, ২০২২ ১৯:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘১০ হাজার নারীর সঙ্গে বিছানায় গেছি’- গর্ব করে বলছিলেন মেন্দি!‍

ধর্ষণে অভিযুক্ত বেঞ্জামিন মেন্দি। ছবি : এএফপি

ধর্ষণের অভিযোগে ম্যানচেস্টার সিটির ফরাসি ডিফেন্ডার বেঞ্জামিন মেন্দির বিচার শুরু হয়েছে। আদালতের শুনানিতে উঠে আসছে একের পর এক ভয়ংকর বিকৃত ঘটনা। মেন্দি তরুণীদের ফাঁদে ফেলে তাদের সঙ্গে যৌনতায় মেতে উঠতেন। সেগুলো ছিল রীতিমতো যৌন নির্যাতন।

বিজ্ঞাপন

এর মাঝে এক ভুক্তভোগী অভিযোগ করেছেন, মেন্দি তাকে ধর্ষণ করার সময় বলতেন যে তিনি নাকি এক হাজার নারীর সঙ্গে সহবাস করেছেন! খবর বিবিসির।

চেস্টার ক্রাউন আদালতে মেন্দির বিরুদ্ধে আটটি ধর্ষণ, একটি ধর্ষণচেষ্টা এবং একটি যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনা হয়েছে। বিচারকের সামনে ভুক্তভোগী সেই তরুণী বলেন, তার ওপর মেন্দির যৌন নির্যাতন ১৫ মিনিট ধরে চলছিল। তার ভাষায়, “ওই সময়টুকু আমার কাছে জীবনের সবচেয়ে দীর্ঘতম দিন বলে মনে হচ্ছিল। আমি অসংখ্যবার বলেছি, ‘না’! কিন্তু সে আমাকে জোর করেছিল। আমি ভীষণ বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম। ”

তিনি আদালতকে আরো জানান, একটি বারে ২৮ বছর বয়সী ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী তারকার সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এরপর তাকে নিজের বাড়িতে একটি পার্টিতে আমন্ত্রণ জানান মেন্দি। ভুক্তভোগী তরুণী মেন্দির বাসায় গেলে তিনি তার মোবাইল ফোন কেড়ে নেন। বারবার চাইলেও তা ফেরত দেননি। বরং তাকে নেওয়া হয় একটি বিশেষ ধরনের ঘরে, যাতে এমন নিরাপত্তাব্যবস্থা রাখা হয়েছে যে পালানো অসম্ভব! মেন্দি তখন সেই তরুণীকে বিবসনা হতে নির্দেশ দেন।

তরুণী রাজি না হলে মেন্দি জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের সময় মেন্দি নাকি গর্ব করে বলছিলেন, তিনি ১০ হাজার নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করেছেন এবং এতে তিনি খুবই গর্বিত। তরুণীকে তিনি নির্দেশ দেন, যেটা হয়েছে তা যেন কাউকে না বলেন। বললেই সমস্যা হয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, আদালতে তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন মেন্দি। তার সব অপকর্মের সঙ্গী ৪১ বছর বয়সী লুইস সাহাও আটটি ধর্ষণ এবং চারটি যৌন নিপীড়নের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।



সাতদিনের সেরা