kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০২২ । ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বোর্নমাউথকে উড়িয়ে ম্যান সিটির গোল উৎসব

অনলাইন ডেস্ক   

১৩ আগস্ট, ২০২২ ২২:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বোর্নমাউথকে উড়িয়ে ম্যান সিটির গোল উৎসব

প্রথমার্ধেই তিন গোল করে চালকের আসনে বসে ম্যানচেস্টার সিটি। প্রতিপক্ষ বোর্নমাউথকে কোনো সুযোগ না দিয়ে জয়ের পথে এগিয়ে যায় পেপ গার্দিওলার দল। দ্বিতীয়ার্ধেও আধিপত্য বিস্তার করে খেলে ব্রুইন, হালান্ডরা। যদিও এই অর্ধে এক গোলের বেশি করতে পারেনি সিটিজেনরা।

বিজ্ঞাপন

তবে জয়ের পথে কোনো বাধা হতে পারেনি বোর্নমাউথ।

শনিবার ইতিহাদ স্টেডিয়ামে বোর্নমাউথকে ৪-০ ব্যবধানে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। একটি করে গোল করেছেন ইলকাই গুন্দোগান, কেভিন ডি ব্রুইন ও ফিল ফোডেন, বাকি একটি আত্মঘাতী। এবারের প্রিমিয়ার লিগে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিল বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। এর আগে প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট হামকে ২-০ গোলে হারিয়ে লিগ শুরু করে ম্যানচেস্টার সিটি। দুই ম্যাচের ছয় পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে ম্যানচেস্টার সিটি। দুই ম্যাচে তিন পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে বোর্নমাউথ।

ম্যাচের নবম মিনিটে সিটির আক্রমণ রুখে দেন বোর্নমাউথ গোলকিপার মার্ক ট্রাভের্স। বক্সের বাইরে থেকে কেভিন ডি ব্রুইনের গতির শট বক্সের ভেতর ফিল ফোডেনের পায়ে আটকে যায়। বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে পোস্টে শট নেন ফোডেন কিন্তু তা দারুণভাবে আটকে দেন ট্রাভের্স।  

আক্রমণের ধারা অব্যাহত রেখে ১৯ মিনিটে গোলের দেখা পায় সিটি। ইলকাই গুনদোগানের গোলে লিড পায় স্বাগতিকরা। আর্লিং হালান্ডের সঙ্গে বল দেওয়া-নেওয়া করে বক্সে ঢুকে মাপা শটে লক্ষ্যভেদ করেন জার্মান এই ফুটবলার। ম্যাচে এগিয়ে যাওয়া সিটি বোর্নমাউথকে আরো চেপে ধরে। গোলও পেয়ে যায় দ্রুত।

৩১ মিনিটে সিটির ব্যবধান বাড়ায় ডি ব্রুইন। ফিল ফোডেনের বাড়ানো বল নিয়ে বক্সের ভেতরে ঢুকে ডান পায়ের বাঁকানো শটে জাল খুঁজে নেন বেলজিয়ান এই মিডফিল্ডার। ৩৭ মিনিটে তিন গোলে এগিয়ে যায় সিটি। গোল করেন ফিল ফোডেন। প্রতি আক্রমণে উঠে ডি ব্রুইনের বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বাঁ পায়ের শটে বল জালে পাঠান ফিল ফোডেন।

দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কয়েকবার সুযোগ তৈরি করেও গোলের দেখা পাচ্ছিল না গার্দিওলার দল। অবশেষে ৭৯ মিনিটে আত্মঘাতী গোল পেয়ে যায় সিটি। হোয়াও ক্যানসেলোর গতির শট জেফারসন লেরমার পায়ে লেগে জালে জড়ায়। এতেই বড় জয় নিশ্চিত হয় চ্যাম্পিয়নদের।



সাতদিনের সেরা