kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৯ সফর ১৪৪৪

শুরু হল প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল লিগ

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

১০ আগস্ট, ২০২২ ১৯:১৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শুরু হল প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল লিগ

ছবিঃ মীর ফরিদ

একই দিনে মাঠে গড়াল প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল লিগ। বুধবার দুপুরে বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় একই সঙ্গে দুটি লিগের উদ্বোধন হয়। দুটি লিগের উদ্বোধন ঘোষণা করেন মহানগর লিগ কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সহ-সভাপতি ইমরুল হাসান।

প্রথম বিভাগ লিগে অংশ নিচ্ছে ১৪ এবং দ্বিতীয় বিভাগে ১৮টি দল।

বিজ্ঞাপন

উদ্বোধনী দিনে দ্বিতীয় বিভাগ লিগের প্রথম ম্যাচে বিক্রমপুর কিংসকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি)। বিকেএসপির হয়ে গোল করেছেন ইমন হোসেন ও আল মিরাদ। বিক্রমপুর কিংসের হয়ে এক গোল শোধ দেন সুমন। প্রথম বিভাগ লিগের প্রথম ম্যাচে দিলকুশাকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব। জোড়া গোল সাজ্জাদ ইকবালের।

এই দুটি লিগের দলবদল হয়েছে একই সময়ে। তাই একজন খেলোয়াড় দুটি লিগেই খেলার সুযোগ পাচ্ছে না। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে খেলোয়াড় এনে ক্লাবগুলো দল গঠন করেছে। তাই এবারের লিগ থেকে প্রতিভাবান খেলোয়াড় খুঁজে পাওয়ার আশা মহানগর লিগ কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সহ-সভাপতি ইমরুল হাসানের,'প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগের দলবদল একই সময়ে হওয়ায় একই খেলোয়াড় দুই লিগেই খেলতে পারছে না। এতে ঢাকার বাইরে থেকেও অনেক খেলোয়াড় বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে খেলছে। আশা করছি এখান থেকে আমরা বেশ কিছু প্রতিভাবান খেলোয়াড় খুঁজে পাব। এর আগে পাইওনিয়ার ও তৃতীয় বিভাগ লিগ থেকে প্রায় ৩০ জনের মত খেলোয়াড়কে আমরা বাছাই করেছি। তাদের নিয়ে আমাদের পরিকল্পনা আছে। আর এখান (প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ লিগ) থেকে যদি প্রতিভাবান খেলোয়াড় খুঁজে পাই তবে আমরা তাদেরকে নিয়েও ভিন্ন পরিকল্পনা করব। '

চ্যাম্পিয়নশিপ বা প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ লিগে পাতানো ম্যাচ খেলার বিস্তর অভিযোগ পাওয়া যায়। এবার যদি কোনো দল পাতানো ম্যাচ খেলে তা শনাক্তকরণের জন্য প্রতিটা ম্যাচ ভিডিও ধারণ করা হবে বলে জানান ইমরুল হাসান,'পাতানো খেলা নিয়ে আমরা কঠোর অবস্থানে আছি। যদি প্রমাণ মেলে কোনো দল পাতানো খেলা খেলছে তবে আমরা সর্বোচ্চ শাস্তি দিব। পাতানো খেলা শনাক্তকরণের জন্য প্রতিটা ম্যাচ ভিডিও ধারণ করা হবে। এতে কারা পাতানো ম্যাচ খেলল সেটা নির্ধারণ করা সহজ হবে। আশা করি আগের চেয়ে এবারের আসর সফলতা অর্জন করবে। দলগুলোর প্রাইজমানি ও অংশগ্রহণ ফি বাড়িয়েছি। এতে দলগুলোকে আর্থিক দিক দিয়ে কিছুটা হলেও সহায়তা করবে। সবমিলিয়ে আশা করছি আসরটি সফল হবে। '



সাতদিনের সেরা