kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

বাংলাদেশকে বিশাল টার্গেট দিল উইন্ডিজ

অনলাইন ডেস্ক   

৪ জুলাই, ২০২২ ০১:২২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাংলাদেশকে বিশাল টার্গেট দিল উইন্ডিজ

রীতমতো রান পাহাড়! টি-টোয়েন্টি ব্যাটিং কাকে বলে দেখাল ক্যারিবিয়ানরা। যদিও শুরুটা অন্য কিছু ইঙ্গিত দিয়েছিল। একসময় মনে হচ্ছিল, বাংলাদেশ ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে। কিন্তু না, ব্রেন্ডন কিং আর নিকোলাস পুরানের জুটি সেই ধারণাকে দ্রুতই ভুল প্রমাণিত করে।

বিজ্ঞাপন

এরপর রোভম্যান পাওয়েলের ব্যাটিং তাণ্ডবে বাংলাদেশ রীতিমতো রানপাহাড়ে চাপা পড়েছে। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ক্যারিবিয়ানরা তুলেছে ১৯৩ রান। এই রান তাড়া করে জিততে হলে টাইগারদের সেরাটাই উজার করে দিতে হবে।

ডমিনিকার উইন্ডসর পার্কে টস হেরে তাসকিন আহমেদকে দিয়ে বোলিং শুরু করান বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু বেচারা তাসকিন প্রথম ওভারেই ১৪ রান দিয়ে বসেন। পরের ওভারেই স্পিনার। শেখ মেহেদি এসে বোল্ড করে দেন ৯ বলে ১৭ রান করা কাইল মেয়ার্সকে। খরচ করেন মাত্র চার রান। তৃতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসে প্রথম চার বলে কোনো রান দেননি মুস্তাফিজুর রহমান। পরের দুই বলে হজম করেন দুই বাউন্ডারি। বোলিং পরিবর্তনের ধারাবাহিকতায় চতুর্থ ওভারেই আনা হয় সাকিব আল হাসানকে। বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার দ্বিতীয় বলেই শামার ব্রুকসকে (০) মাহমুদউল্লাহর তালুবন্দি করেন। ওভারে মাত্র ১ রান দেন সাকিব। ২৬ রানে দুই উইকেট হারায় উইন্ডিজ। কিন্তু দ্রুতই তারা ব্রেন্ডন কিং আর অধিনায়ক নিকোলাস পুরানের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায়। পাওয়ারপ্লেতে আসে ৪৬ রান।

১২ ওভারে ক্যারিবিয়ানদের স্কোর একশ ছুঁয়ে ফেলে। দলীয় একশ রানেই তৃতীয় উইকেট হারায় উইন্ডিজ। রীতিমতো মেডেন উইকেট নিয়ে ৫৬ বলে ৭৪ রানের জুটি ভাঙেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তার বলে ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক নিকোলাস পুরান লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন। রিভিউ নিয়েও সিদ্ধান্ত বদলাতে পারেননি। অন্যদিকে ৩৬ বলে ফিফটি তুলে নেন ওপেনার কিং। ১৬তম ওভারে নিজের শেষ ওভার করতে এসে রোভম্যান পাওয়েলের ব্যাটে বেদম মার খান সাকিব। ৩ ছক্কা ১ চারে দেন ২৪ রান। যদিও প্রথম তিন ওভারে তিনি ছিলেন খুব কৃপণ। পাওয়েল ক্রমেই ভয়ংকর হয়ে উঠছিলেন।

১৮তম ওভারে এসে ৪৩ বলে ৭ চার ১ ছক্কায় ৫৭ রানে ব্রেন্ডন কিংকে ফেরান পেসার শরীফুল ইসলাম। এরপরই ২০ বলে ২ চার ৫ ছক্কায় ফিফটি তুলে নেন পাওয়েল। শেষ ওভারের প্রথম বলে রোমারিও শেপার্ডকে (৩) ফিরিয়ে ক্যারিবিয়ানদের পঞ্চম উইকেট পতন ঘটান শরীফুল। এতে অবশ্য ম্যাচে প্রভাব পড়েনি। হজম করতে হয়েছে দুটি ছক্কা। ২৮ বলে ২ চার ৬ ছক্কায় ৬১* রানে অপরাজিত থাকেন পাওয়েল। ওডেন স্মিথ অপরাজিত থাকেন ৪ বলে ১ ছক্কায় ১১* রানে। ক্যারিবিয়ানদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২০ ওভারে ৫ উইকেটে  ১৯৩ রান।

বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে খরুচে বোলার তাসকিন আহমেদ। ৩ ওভারে ৪৬ রান দিয়ে উইকেটশূন্য! শেষ ওভারে মার খাওয়া সাকিব ৪ ওভারে দিয়েছেন ৩৮ রান, উইকেট নিয়েছেন ১টি। আরেক পেসার মুস্তাফিজ ৪ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। একাধিক ওভার করা বোলারদের মাঝে সবচেয়ে কম রান দিয়েছেন স্পিনার শেখ মেহেদি। ৪ ওভারে ৩১ রান দিয়ে নিয়েছেন ১ উইকেট। আর শরীফুল ২ উইকেট নিলেও ৪ ওভারে দিয়েছেন ৪০ রান।



সাতদিনের সেরা