kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

৪৫ ওভার বোলিং; তাইজুলের রুদ্ররূপ

অনলাইন ডেস্ক   

২৮ নভেম্বর, ২০২১ ১৫:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪৫ ওভার বোলিং; তাইজুলের রুদ্ররূপ

ছবি : এএফপি

এক ইনিংসে ৫০-৬০ ওভার বোলিং করা ক্রিকেট ইতিহাসে নতুন কোনো ঘটনা নয়। টেস্ট ম্যাচগুলোতে দিনে মোটামুটি ৯০ ওভার বা এর কাছাকাছি ওভারেই খেলা হয়। কিন্তু বাংলাদেশের বোলারদের জন্য এটা স্বপ্নের মতো ব্যাপারই বটে। এদেশে এক ইনিংসে ৪৫ ওভার বোলিং করার মতো বোলার কমই আছে।

বিজ্ঞাপন

বেশিরভাগই ২০ ওভার বল করে হাঁপিয়ে ওঠে। সেখানে পাকিস্তানের বিপক্ষে আজ চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিনে রীতিমতো অসাধ্য সাধন করলেন তাইজুল ইসলাম।

৪৪.৪ ওভার বোলিং করে তাইজুল শিকার করেছেন ৭ উইকেট। এটা অবশ্য তার ক্যারিয়ারসেরা ৮/৪২ ছাড়িয়ে যেতে পারেনি। তবে পাকিস্তানের প্রথম ইনিংস ধসিয়ে দিয়েছে। রান দিয়েছেন মাত্র ১১৬। ইকনোমি ২.৫৯। অন্য কোনো বোলার ওভারের দিক দিয়ে তার ধারেকাছেও নেই। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০ ওভার বল করে ৬৮ রানে ১ উইকেট নিয়েছেন আরেক স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ। পাকিস্তান গুটিয়ে গেছে ২৮৬ রানে। বাংলাদেশ পেয়েছে ৪৪ রানের লিড।

তাইজুলের ক্যারিয়ারের এটা ৯ম বারের মতো পাঁচ উইকেট শিকার। যা বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ইনিংসে সর্বোচ্চ ১৮ বার পাঁচ উইকেট নিয়ে শীর্ষে সাকিব আল হাসান। তৃতীয় সর্বোচ্চ ৮ বার ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন মেহেদি মিরাজ।  তাইজুল এমনিতেই বেশি ম্যাচ খেলতে পারেন না। তার গায়ে লেগেছে টেস্ট বোলারের তকমা। তাই মাঠে নামার জন্য অপেক্ষার পাশাপাশি সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হয় তাইজুলকে।

সর্বশেষ জাতীয় লিগে ৩ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ১৯ উইকেট। আসল পারফর্মেন্সটা যেন আজকের জন্যই তিনি জমিয়ে রেখেছিলেন। আজ অধিনায়ক মুমিনুল হকের সফল রিভিউয়ে পাকিস্তানের শেষ উইকেট তুলে নিয়ে তাইজুল নবম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেড়শ উইকেটের মালিক হয়েছেন। এর মাঝে টেস্ট ফরম্যাটেই নিয়েছেন ১৪১ উইকেট। তিন ফরম্যাটে ৬০৯ উইকেট নিয়ে সবার ওপরে আছেন সেই সাকিব আল হাসান।



সাতদিনের সেরা