kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

তবু গর্বিত উইলিয়ামসন

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

১৫ নভেম্বর, ২০২১ ১০:৪৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তবু গর্বিত উইলিয়ামসন

ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইক আথারটন স্বীকার করে নিয়েছেন, ‘তিন ফরম্যাটে সময়ের সবচেয়ে শক্তিশালী দল এখন নিউজিল্যান্ড।’ আইসিসি র‌্যাংকিংও সেটা স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে। টেস্ট আর ওয়ানডেতে এখন শীর্ষে কেন উইলিয়ামসনের দল। টি-টোয়েন্টিতে শীর্ষে থাকা ইংলান্ডের চেয়ে রেটিং পয়েন্টের ব্যবধান বেশি নয়। গতকাল বিশ্বকাপ ফাইনালেও ফেভারিট ছিল তারা। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার অসাধারণ পারফরম্যান্সে বুক ভাঙল আরো একবার। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ভেঙে না পড়ে গর্বিত নিজের দল নিয়ে, ‘অস্ট্রেলিয়া যেভাবে রান তাড়া করেছে তাতে কৃতিত্বটা ওদের পাওনা। ওরা আমাদের এক ইঞ্চি জায়গাও ছাড়েনি। তবে আমরা যেভাবে খেলেছি তাতে গর্ব করতেই পারি।’

টেস্ট বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জেতা কিউইদের রেটিং পয়েন্ট ১২৬ আর দুইয়ে থাকা ভারতের ১১৯। গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা কিউইরা ১২১ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে এই ফরম্যাটের চূড়ায় । ইংল্যান্ড আছে দুইয়ে। তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলেও র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে পৌঁছানো হচ্ছে না।

২৫৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে নিউজিল্যান্ড এখন ৪ নম্বরে। গতকাল দুবাইয়ে বিশ্বকাপ ফাইনালের প্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়া ২৪৬ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে আছে ছয়ে। তাই চারে থেকে বিশ্বকাপ শেষ করতে হচ্ছে কিউইদের। শীর্ষে থাকা ইংল্যান্ডের রেটিং পয়েন্ট ২৭৮, ভারতের ২৬৪ আর পাকিস্তানের ২৬৩। এই তিন দলকেই বিশ্বকাপে হারিয়েছে কিউইরা। তার পরও কিছুদিন এই তিন দলের পেছনে থাকতে হবে কেন উইলিয়ামসনদের।

তাসমান পারের দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইকে একটা সময় তুলনা করা হতো ডেভিড ও গোলিয়াথের সঙ্গে। খেলার মানে নিউজিল্যান্ড অনেকখানি এগিয়ে গেলেও অর্থবিত্তে ব্যাপারটা এখনো তা-ই আছে। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ডের বছরে আয় ৪১৪.৭ মিলিয়ন ডলার। সেখানে নিউজিল্যান্ড বোর্ডের আয় মাত্র ৬০ মিলিয়ন ডলার। আইপিএলে ক্রিকেটারদের দামেও অনেক পিছিয়ে নিউজিল্যান্ড। ফাইনালে খেলা অস্ট্রেলিয়ার দলের যে কজন আইপিএলে সুযোগ পেয়েছিলেন তাঁদের সম্মিলিত দাম ১০.৫ মিলিয়ন ডলার। নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়রা সেখানে বিক্রি হয়েছেন ২.২ মিলিয়ন ডলারে। অস্ট্রেলিয়ার তিনজন খেলোয়াড়ের দাম পুরো নিউজিল্যান্ডের চেয়ে বেশি। প্যাট কামিন্সের দাম ৩.১৭ মিলিয়ন ডলার, গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ২.৬৩ মিলিয়ন ডলার আর ডেভিড ওয়ার্নারের ২.৩ মিলিয়ন ডলার। সেখানে পুরো নিউজিল্যান্ডের দাম ২.২ মিলিয়ন ডলার!

কিউই খেলোয়াড়দের মধ্যে এবারের আইপিএলে কেন উইলিয়ামসনের দাম ছিল চার লাখ ডলার, ট্রেন্ট বোল্টের চার লাখ ডলারের সামান্য বেশি, টিম সাউদির এক লাখ ৩৮ হাজার ডলার। ওপেনার মার্টিন গাপটিলকে তো কেনেইনি কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। এই ‘কম দামি’ খেলোয়াড়রাই সাফল্যের চূড়ায় নিয়ে গেছেন নিউজিল্যান্ডকে। আইসিসির টানা তিন বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলল তারা। তবে টি-টোয়েন্টির শিরোপাটা এত কাছের, তবু এত দূরের হওয়ার আফসোস ঝরল উইলিয়ামসনের কণ্ঠে, ‘আমরা ভেবেছিলাম স্কোরটা যথেষ্ট, যদিও এটা বোঝা যায় না। দুর্দান্তভাবে রান তাড়া করল অস্ট্রেলিয়া। আমরাও খুব বেশি দূরে ছিলাম না।’



সাতদিনের সেরা