kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

দলে সুযোগ দেওয়ার কথা বলে টাকা নিতেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ক্রিকেটার!

অনলাইন ডেস্ক   

৯ নভেম্বর, ২০২১ ১১:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দলে সুযোগ দেওয়ার কথা বলে টাকা নিতেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ক্রিকেটার!

ভারতীয় ক্রিকেটে আবারও দুর্নীতির ভূত। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের এক ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে দলে সুযোগ দেওয়ার লোভ দেখিয়ে বিপুল অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সেই সঙ্গে বেশ কিছু ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনর কর্মকর্তাদের নামও এসেছে। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সিকে নাইডু ট্রফিতে হিমাচল প্রদেশের অনূর্ধ্ব-২৩ দলে সুযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক ক্রিকেটারের কাছ থেকে ১০ লাখ রুপি ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ক্রিকেটার জাভেদ খানের বিরুদ্ধে।

উত্তরপ্রদেশের আনশুল রাজ নামের এক ক্রিকেটার অভিযোগ দায়ের করলে ঘটনাটি সবার নজরে আসে। অনূর্ধ্ব-২৩ দলে সুযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে সংশ্লিষ্ট ক্রিকেটারের কাছ থেকে ১০ লাখ রুপি হাতিয়ে নেন গুরুগ্রামের এক কর্পোরেট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের প্রেসিডেন্ট আশুতোষ বোরা। এরপর প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করেন সেই ক্রিকেটার। পুলিশ চার্জশিট ফাইল করে তদন্ত চালানোর পরেই কেঁচো খুঁড়তে কেউটে বেরিয়ে আসে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ৩ সেপ্টেম্বর করপোরেট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের প্রেসিডেন্ট আশুতোষ বোরা, অ্যাসোসিয়েশনের ম্যানেজিং ডিরেক্টর তার বোন চিত্রাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে অর্থ তছরুপ, প্রতারণা, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রসহ একাধিক ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। নিজের অভিযোগে আনশুল আরো জানান, সিকিম দলে সুযোগ দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় তাকে। তবে শেষ পর্যন্ত উত্তরপ্রদেশ ক্রিকেটার বুঝতে পারেন তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

দিল্লির রাজ্য দলের হয়ে বহুদিন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলা জাভেদ খানকে সেই অ্যাসোসিয়েশনের মুখ হিসেবে ব্যবহার করা হতো। মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের স্কোয়াডেও একসময় ছিলেন জাভেদ খান। যে কারণে তার ওপর প্রত্যন্ত অঞ্চলের ক্রিকেটাররা বেশ আস্থা রাখতেন। নিজের ইমেজ ব্যবহার করে প্রতারণা করতেন জাভেত। আনশুল রাজ বলেন, 'দরিদ্র সাধারণ পরিবারের হলেও দেশের হয়ে খেলার স্বপ্ন আমার বহুদিনের। অভিযুক্তরা আমাকে পথে বসিয়ে দিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে যেন এফআইআর দায়ের করা হয়।



সাতদিনের সেরা