kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

অস্ট্রেলিয়া না দক্ষিণ আফ্রিকা

অনলাইন ডেস্ক   

২৩ অক্টোবর, ২০২১ ১০:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অস্ট্রেলিয়া না দক্ষিণ আফ্রিকা

ওয়ানডের সবচেয়ে সফল দল, টেস্টের কুলীন দলগুলোর একটি অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টিতে এখনো বলার মতো সাফল্য নেই। এই বিশ্বকাপে তাই ক্ষুধার্ত হয়েই এসেছেন ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথ, মিচেল স্টার্করা। শিরোপায় চোখ রাখা দলটির জন্য একটা ভালো শুরুর কোনো বিকল্প নেই। ,তবে প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা যেকোনো দলের জন্যই বড় হুমকি। বড় আসরে রোমাঞ্চের শেষ ল্যাপে দলটি হাঁপিয়ে ওঠে যদিও। তবে শুরুর দক্ষিণ আফ্রিকা বরাবরই বিপজ্জনক, প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া হলেও।

দক্ষিণ আফ্রিকার এই দলটিতে আগের মতো তারকার ভিড় নেই। ফলে প্রত্যাশাও নেই অত বেশি—যে চাপে তারা বারবার ভেঙে পড়ে বলে মনে করা হয়। তেম্বা বাভুমা, কুইন্টন ডি কক, এইডেন মারক্রামদের তাই নির্ভার খেলার সুযোগ আছে। দল হিসেবে দারুণ ফর্মেও আছে তারা এই মুহূর্তে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আয়ারল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ তিনটি সিরিজেই জিতেছে।

ফর্ম বিবেচনায় অস্ট্রেলিয়া ঠিক বিপরীত মেরুতে। বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড, ভারত, ইংল্যান্ড—সিরিজ হারেনি তারা কোন দলের কাছে? ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যক্তিগত ফর্মও দুশ্চিন্তার, তবে বড় মঞ্চে তিনি ঠিকই জ্বলে উঠবেন, এটাই এখন আশা। হাঁটুতে অস্ত্রোপচারের পর খুব বেশি ম্যাচ খেলতে না পারা অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকেও ছন্দে ফিরতে হবে খুব দ্রুত।

মিচেল স্টার্ক এখনো ফুরাননি—প্রমাণ করার আছে সেটিও। মিডল অর্ডারে স্মিথ, মার্কাস স্টোয়নিস, গ্লেন ম্যাক্সওয়েলরা অবশ্য নির্ভরতা দেবেন। আর স্পিন সহায়ক উইকেটে অ্যাস্টন অ্যাগার ও অ্যাডাম জাম্পা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার টপ অর্ডার মাঝে ডেভিড মিলারের ফর্ম গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। বোলিংয়ে কাগিসো রাবাদা, তাবরেজ শামসি পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন। এএফপি



সাতদিনের সেরা