kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৫ কার্তিক ১৪২৮। ২১ অক্টোবর ২০২১। ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

টানা তিন সিরিজ জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়েই বিশ্বকাপে যাব : মাহমুদউল্লাহ

অনলাইন ডেস্ক   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২০:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টানা তিন সিরিজ জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়েই বিশ্বকাপে যাব : মাহমুদউল্লাহ

শেষ ম্যাচ হারলেও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জয় করে নিয়েছে বাংলাদেশ। এর আগে দেশ ও দেশের বাইরে বধ হয়েছে অস্ট্রেলিয়া আর জিম্বাবুয়ে। কিউইদের বিপক্ষে আজ শেষ ম্যাচে টাইগাররা হেরেছে ২৭ রানে। আজকের উইকেট ছিল ব্যাটিং সহায়ক। গত অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকে রানের জন্য হাহাকার থাকলেও নতুন উইকেটে খেলা হওয়ায় আজ রান উঠেছে প্রচুর। এমন ব্যাটিং স্বর্গে পরাজয়ের কারণ হিসেবে ব্যাটিং ব্যর্থতাকেই দায়ী করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

ম্যাচ শেষে মাহমুদউল্লাহ জানিয়েছেন সিরিজ জয় এবং শেষ ম্যাচে পরাজয়ের অনুভূতি, 'সিরিজ জয়ে অবশ্যই ভালো লাগছে। তবে আজকের ম্যাচটা জেতা উচিত ছিল। কিন্তু নিউজিল্যান্ড আজ দারুণ ব্যাট করেছে। তারা একটা ভালো স্কোর করেছিল। আমরা সেটা চেজ করতে পারিনি তবে সিরিজ জিততে পেরে ভালো লাগছে। আজকের উইকেট আসলেই ভালো ছিল। কিন্তু আমরা শেষটা ঠিকঠাক করতে পারিনি। শেষ দুই ওভারে বেশ কিছু রান প্রয়োজন ছিল। কিন্তু তাদের বোলাররা, বিশেষ করে স্পিনাররা ভালো বল করেছে।

কিউইরা উড়ন্ত সূচনা করলেও ম্যাচ একসময় নিয়ন্ত্রণে নিয়েছিল বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ বলেন, 'ম্যাচের শুরুতে শরীফুল দুই উইকেট তুলে নিয়ে তাদের আটকানোর সুযোগ তৈরি করেছিল। কিন্তু এই উইকেট আসলে ব্যাটিং উপযোগী। আমরা রান তাড়ায় ভালো শুরু করতে পারিনি। তাই আস্কিং  রান রেট বেড়ে যাচ্ছিল। আমি আর আফিফ জুটি গড়ার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু দিনশেষ তারা ভালো বোলিংয়ে ম্যাচ বের করে নেয়। তারা তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পেরেছে। তাই সব কৃতিত্ব তাদেরই।'

কথায় বলে 'সব ভালো যার শেষ ভালো'। কিন্তু টাইগারের শেষটা আজ ভালো হলো না। অস্ট্রেলিয়া সিরিজও জয় দিয়ে শেষ করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু বিশ্বকাপের আগে শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচটিতে পরাজয়ের স্বাদ নিতে হলো। আজ হারলেও টানা তিন সিরিজ জয় দলকে আত্মবিশ্বাস দেবে বলেই মনে করেন অধিনায়ক, 'সর্বশেষ তিন সিরিজে আমরা ভাল ক্রিকেট খেলেছিল। টানা তিনটি সিরিজ জিতেছি। দলের জন্য অবশ্যই এটা ভালো হয়েছে। আশা করছি, এই জয়গুলো থেকে পাওয়া আত্মবিশ্বাস বিশ্বকাপে কাজে দেবে।'



সাতদিনের সেরা