kalerkantho

শুক্রবার । ২ আশ্বিন ১৪২৮। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ৯ সফর ১৪৪৩

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন অবলম্বনে

আজ কে হচ্ছেন নতুন উসাইন বোল্ট?

অনলাইন ডেস্ক   

১ আগস্ট, ২০২১ ১৪:০৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আজ কে হচ্ছেন নতুন উসাইন বোল্ট?

অলিম্পিক আসরের অন্যতম আকর্ষর্ণীয় ইভেন্ট হলো ১০০ মিটার দৌড়। মাত্র ১০ সেকেন্ডের প্রতিযোগিতা, কিন্তু এটা নিয়ে বিশ্ববাসীর আগ্রহের শেষ নেই। গত তিনটি অলিম্পিক গেমসে এই ইভেন্টে সেরা হওয়ার খেতাবটি উসাইন বোল্ট ছাড়া অন্য কেউ পাননি। ২০১৭ সালে সব ধরনের আনুষ্ঠানিক ক্রীড়া থেকে অবসর নেন জ্যামাইকার এই বিশ্ব রেকর্ডধারী স্প্রিন্টার। তাই  এবারে নতুন দ্রুততম মানব দেখবে বিশ্ব। আজ রবিবার সন্ধ্যায় পুরুষদের ১০০ মিটার দৌড়ের ইভেন্টটি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। তার আগে জেনে নিন প্রতিযোগীদের সম্পর্কে।

ট্রেভন ব্রোমেল, যুক্তরাষ্ট্র : ২০১৬ সালে রিও অলিম্পিকে চোট পান মার্কিন এই দৌড়বিদ। এরপর তিন বছর চোটের সাথে লড়াই করেন। ২০২১ সালে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে দ্রুততম মানব তিনিই। জুন মাসেই ৯.৭৭ সেকেন্ডে ১০০ মিটার দৌড়ে শেষ করেন ব্রোমেল। ২৬ বছর বয়সী ব্রোমেল এর আগে হুইলচেয়ারে চেপে অলিম্পিকের মঞ্চ ত্যাগ করেছিলেন।

ফ্রেড কার্লে, যুক্তরাষ্ট্র : ৪০০ মিটার দৌড়ে যুক্তরাষ্ট্রে সেরার খেতাব জিতেছিলেন তিনি, কিন্তু ১০০ ও ২০০ মিটার দৌড়ে নাম লেখানোর পর অনেকেই সংশয়ে কপাল কুচকান, কিন্তু কার্লে নিজেকে প্রমাণ করেন যুক্তরাষ্ট্রের ট্রায়ালে তিনি ১০০ মিটার অতিক্রম করেন ৯.৮৬ সেকেন্ডে। ২০০ মিটার দৌড়ে কার্লের রেকর্ড ১৯.৯০ সেকেন্ড। তিনি বিশ্বে তৃতীয় ব্যক্তি যিনি ১০০, ২০০ ও ৪০০ মিটার দৌড় যথাক্রমে, ১০, ২০ ও ৪৪ সেকেন্ডের সময়সীমা মধ্যেই অতিক্রম করেন।

রনি বেকার, যুক্তরাষ্ট্র
রনি বেকারও চোটে জর্জরিত এক মার্কিন অ্যাথলেট। ২০১৮ সালে ওয়ার্ল্ড ইনডোরে তিনি ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন। সেবার ১০০ মিটার দৌড়ে ব্যক্তিগত রেকর্ড ভাঙেন রনি। তবে নিয়মিত চোটের কারণে ২০১৯ সালের দিকে বেশ ক্ষতি হয়, বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপেও খেলতে পারেননি।

আন্দ্রে ডি গ্রাস, কানাডা : কানাডিয়ান এই দৌড়বিদ এখন ভালো ফর্মে আছেন। রিও অলিম্পিকে ১০০ মিটারে ব্রোঞ্জ, ২০০ মিটারে সিলভার এবং রিলে দৌড়ে ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন। ২০১৯ সালেও বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ১০০ মিটারে ব্রোঞ্জ এবং ২০০ মিটারে সিলভার জিতে নেন ডি গ্রাস। চোট ও নানা ধরনের অসুস্থতা মিলিয়ে ডি গ্রাসের এগিয়ে যেতে পারেননি। অন্যদের তুলনায় যদিও চলতি বছরের মে মাসে তিনি ৯.৯২ সেকেন্ডে ১০০ মিটার দৌড়ে শেষ করেন। এবার আন্দ্রে ডি গ্রাস স্বর্ণ জিতে গেলে ১৯৯৬ সালের আটলান্টা অলিম্পিকে ডনাভান বেইলির পদাঙ্ক অনুসরণ করবেন, বেইলি সেবার অলিম্পিক গেমসে ১০০ মিটার দৌড়ে সেরার খেতাব পান।

আকানি সিমবাইন, দক্ষিণ আফ্রিকা : ১৯০৮ সালের পর কোন আফ্রিকার দৌড়বিদ অলিম্পিক গেমসের ১০০ মিটার দৌড়ে স্বর্ণ জিতেননি। ১৯০৮ সালের লন্ডন অলিম্পিকে জিতেছিলেন সাউথ আফ্রিকার রেজি ওয়াকার। আকানি সিমবাইনের সামনে সুযোগ আছে ১১৩ বছর পর এই খেতাব আফ্রিকার দখলে নেয়ার। ২০১৯ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে তিনি চতুর্থ হয়েছিলেন, এর আগে ২০১৭ সালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ ও ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকে হয়েছিলেন পঞ্চম। ২৭ বছর বয়সী এই স্প্রিন্টার জুলাই মাসেও ৯.৮৪ সেকেন্ডে দৌড়ে শেষ করেছেন ১০০ মিটার।

ইয়োহান ব্লেক, জ্যামাইকা : জ্যামাইকান দৌড়বিদ ইয়োহান ব্লেককেই মনে করা হতো উসেইন বোল্টের যোগ্য উত্তরসূরী। তার সেরা টাইমিং ৯.৬৯, উসেইন বোল্টের পর বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা। ২০১১ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে গোল্ড জিতেছিলেন ব্লেক। ২০১২ সালে লন্ডন অলিম্পিকে দুটি সিলভার জিতেন তিনি। তবে গত নয় বছরে ব্যক্তিগতভাবে কোন বড় পদক জিতেননি ব্লেক। চলতি বছর জ্যামাইকান চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে ১০০ মিটার দৌড়াতে সময় নেন ৯.৯৮ সেকেন্ড।



সাতদিনের সেরা