kalerkantho

শুক্রবার । ২ আশ্বিন ১৪২৮। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ৯ সফর ১৪৪৩

বোল্টের চোখে অলিম্পিক ১০০ মিটারের পরবর্তী রাজা কে?

অনলাইন ডেস্ক   

৩১ জুলাই, ২০২১ ১৬:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বোল্টের চোখে অলিম্পিক ১০০ মিটারের পরবর্তী রাজা কে?

এতদিন অলিম্পিকের অন্যতম আকর্ষণীয় ইভেন্ট ছিল ১০০ মিটার দৌড়। বিশ্বের দ্রুততম মানব কে হবেন তাই নিয়ে জল্পনা হতো। তবে এবারের অলিম্পিকের ১০০ মিটার দৌড় একটু আলাদা। কারণ এবার দৌড়ের তালিকায় থাকবেন না উসাইন বোল্ট। ২০০৪ সালের পর এই প্রথম অলিম্পিকে দেখা যাবে না বোল্টকে। কারণ ২০১৭ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের পরেই তিনি অবসর নিয়েছেন। তবে অলিম্পিক নিয়ে তার আগ্রহের কমতি নেই। নতুন দ্রুততম মানবকে দেখতে তিনি অপেক্ষায় আছেন।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বোল্ট বলেছেন, তার বাজি আমেরিকার ট্রেভন ব্রমেল। বোল্টের ভাষায়, 'ট্রেভনকে দৌড়াতে দেখা আমার কাছে তাজা বাতাস নেওয়ার মতো। হ্যাঁ, ভেবে একটু অদ্ভুত লাগছে যে এতদিন পর অলিম্পিকের ১০০ মিটারে আমি নামব না। কিন্তু তার মতো দৌড়বিদকে দেখার সৌভাগ্য সবার হয় না। গত কয়েক বছর ধরে সে নিজেকে যে উচ্চতায় তুলে নিয়ে গেছে, তা অসামান্য। খুব বাজেভাবে সে ইনজুরিতে পড়েছিল। কিন্তু এই মৌসুমে তাকে আটকানোর মতো কেউ নেই।'

২০১৫ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ০.০১ সেকেন্ডের ব্যবধানে আমেরিকার জাস্টিন গ্যাটলিনকে হারিয়েছিলেন বোল্ট। সেই রেসে তৃতীয় হয়েছিলেন ব্রমেল। ২০১৬ অলিম্পিকের ১০০ মিটারে তিনি সবার শেষে দৌড় শেষ করেন। এরপরে রিলে রেসে তার পেশি ছিঁড়ে যায়। ২০১৭ সালে অস্ত্রোপচার এবং চিকিৎসার কারণে খেলতেই পারেননি। ২০১৮ সালে ফের একটি অস্ত্রোপচার হয় তার। এ অবস্থায় বেশির ভাগ ক্রীড়াবিদই আর মূলস্রোতে ফিরতে পারেন না। ব্রমেল পেরেছেন।

ফ্লোরিডার সেন্ট পিটার্সবার্গে বেড়ে ওঠা ব্রমেল চোখের সামনে প্রতিদিন খুনোখুনি হিংসা দেখেছেন। দারিদ্র্য এবং অভাবের মধ্যে বেড়ে ওঠা ব্রমেল তাই সোনা জিতে সমাজ বদলের স্বপ্ন দেখছেন। কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, 'আমার লক্ষ্য সোনা জয়। কিন্তু আসল লক্ষ্য হলো সমাজের পরিবর্তন। কারণ মানুষকে দেখাতে চাই আমি কোন জায়গা থেকে উঠে এসেছি। মাটিতে পড়ে গিয়েও সেখান থেকে উঠে দাঁড়িয়েছি। হাল ছাড়িনি। চাই আমাকে দেখে হাজার হাজার শিশু অনুপ্রাণিত হোক।'



সাতদিনের সেরা